জমজমাট ডেস্ক

এবারের দুর্গা পূজোর আগে ফটোশুটে ব্যস্ত ছিলেন কলকাতার শোবিজ অভিনেত্রীরা। সেই তালিকায় ছিলেন টেলিভিশন সিরিয়ালের পাখি খ্যাত মধুমিতা সরকার। আর তিনি এবার পূজোর আগে নিজের নয়া ফটোশুট দিয়ে ঝড় তুলেছিলেন। পূজোর যে কোনোদিন শিফন শাড়ি পরতে চাইলে অনায়াসেই যে কেউ ট্রাই করতে পারেন, তা দেখিয়েছিলেন রূপবতী মধুমিতা। তার হট লুক ফলো করেছেন ভক্তদের কেউ কেউ। এটা নিয়ে পূজোর আগে দারুন আলোচনায় ছিলেন মধুমিতা।

শাড়ি হোক কিংবা পশ্চিমী ড্রেস, ওয়েস্টার্ন হোক কিংবা বিকিনি, সব কিছুতেই নিজের সৌন্দর্যকে ফ্লন্টস করেন মধুমিতা সরকার। আর তাই তাকে নিয়ে সর্বদাই সরগরম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। সম্প্রতি নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম অ্যাকাউন্টে একগুচ্ছ ছবি শেয়ার করেছেন মধুমিতা সরকার । যা পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে নেটদুনিয়ায় ভাইরাল। ঝড়ের গতিতে ছবি দেখতে ভিড় জমছে তার পোস্টে। হট ফিগার ফ্লন্টস করে ভক্তদের পাগল করে দিয়েছেন পাখি।

ছবিতে দেখা যায়, পরনে গাঢ় নীল রঙের শিফনের শাড়ি, সঙ্গে গোল্ডেন রঙের স্লিভলেস ব্লাউজ, কানে বড় ঝুমকো, হাতে আংটি, কপালে টিপ পরে পোজ দিয়েছেন মধুমিতা। বেরিয়ে রয়েছে সুডৌল বুকের অর্ধেক। বুকের মাঝখান দিয়ে শাড়ির আঁচল টেনে হট পোজ দিয়েছেন মধুমিতা। আর তাতেই হুমড়ি খেয়ে পড়েছে নেটদুনিয়া।

পাড় বসানো নীল রঙের শাড়ির সঙ্গে গলায় মোটা নেকলেস ও হাতে ব্যাঙ্গেলস পরেছেন মধুমিতা। কাজল কালো চোখের ইশারায় রাতের ঘুম উড়েছে ভক্তদের। লাস্যে ভরা শরীরে যৌবন যেন উপচে পড়ছে। কখনও দাঁড়িয়ে, কখনও জানলার কাঁচ দিয়ে বাইরের প্রকৃতির দিকে তাকিয়ে আবারজ কখনও আবার লাজুক হয়ে পোজ দিয়েছেন মধুমিতা। একেবারে ছক ভেঙে অন্য অবতারে ধরা দিয়ে চমকে দিয়েছেন এই অভিনেত্রী।

এদিকে তার পোস্টে কেউ প্রশংসা করেছেন, কেউ আবার পরামর্শ দিয়েছেন। কমেন্টে ভক্তরা লেখেন ‘অসাধারণ সুন্দর লাগছে’, তো কেউ বলছেন ‘কানের দুল ও গলার হারটা ভীষণ সুন্দর’। আবার কেউ বলেছেন ‘ঠোঁট ফাটছে বোরোলিন লাগান’। একাধিক কমেন্টের কোনো মন্তব্যই করেননি মধুমিতা।

স্পেশ্যাল ফটোশুটের ছবি শেয়ার করতেই চোখ সরাতে পারছেন না ভক্তরা। বঙ্গ নারীর বেশে নিজেকে সাজিয়েছেন মধুমিতী। শাড়ি, গয়নাতে যেন অপরূপা নায়িকা। কাজলকালো চোখের চাহনিতে ধুকপুকানি বাড়িয়ে দিয়েছেন ছোটপর্দার পাখি। বঙ্গনারী লুকে বাঙালি কন্যার এই সাজ রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে হাজারো পুরুষের।

গদবাঁধা সমীকরণ থেকে বেরিয়ে নিজেকে গড়েপিঠে নিয়েছেন মধুমিতা সরকার। কয়েক বছরেই নিজের একটি আলাদা ফ্যানবেসও তৈরি করেছেন মধুমিতা। আগের থেকে অনেক বেশি গ্ল্যামারাস ও আর অনেকটাই সাহসী মধুমিতা। টলিপাড়ার অন্দরে কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে বাংলা ছেড়ে দক্ষিণের ছবিতে হাতেখড়ি হতে চলেছে মধুমিতার। টলিপাড়ার মিষ্টি মেয়ে পাখি এবার উড়ে যাবেন দক্ষিণে। এই মুহূর্তে দম ফেলার মোটেই সময় নেই মধুমিতার। হাতে একগুচ্ছ কাজ রয়েছে। সেই সঙ্গে বড়পর্দায় রয়েছে একাধিক কাজ।

Previous articleএফডিসিতে নৃত্যগুরু এস আলম ও আমির হোসেন বাবুকে স্মরণ
Next articleকলকাতায় শুরু হচ্ছে চতুর্থ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব

Leave a Reply