রঞ্জু সরকার

সেন্সরবোর্ড কর্তৃক আটকে থাকা দুটি চলচ্চিত্র নিয়ে আওয়াজ উঠার পর সেন্সর বোর্ড নিয়ে কথা বললেন জয়া আহসান। দুই বাংলার জনপ্রিয় এই তারকা সেন্সর বোর্ডের প্রয়োজন নেই বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি এক প্রতিক্রিয়ায় সেন্সর বোর্ডকে ফাঁসির রজ্জুর সঙ্গে তুলনা করে অভিমত জানিয়েছেন – এটি দেশীয় চলচ্চিত্রে গলায় চেপে বসেছে।

১০ আগস্ট বুধবার সন্ধ্যায় নিজের ফেসবুকে শনিবার বিকেলে নামের একটি চলচ্চিত্রের মুক্তি দাবি করে পোস্ট দেন জয়া আহসান। ওই পোস্টে তিনি বলছেন, পৃথিবীর নানা দেশে যখন সেন্সর বোর্ড নামের বালাইটা উঠে যাচ্ছে, আমাদের দেশে সেটা তখন ফাঁসির রজ্জুর মতো চলচ্চিত্রের গলায় চেপে বসছে। এর সর্বশেষ শিকার এখন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত ‘শনিবার বিকেলে’ ছবিটি।

দেবীখ্যাত জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান বলেন, কোনো চলচ্চিত্রের কাহিনী কী হবে, তারও কি এখন প্রেসক্রিপশন নিয়ে আসতে হবে ? চলচ্চিত্রের বিষয় আকাশের তলায় মাটির পৃথিবীর যেকোনো কিছু। চূড়ান্ত কল্পনা, নিরেট বাস্তব, বাস্তব থেকে অনুপ্রাণিত কল্পনা। ‘শনিবারের বিকেলে’ ছবিতে হোলি আর্টিজানের শোচনীয় ঘটনাটির ছায়া আছে বলে ? আসলেই আছে কিনা আমার জানা নেই। যদি থাকেও, তাহলেই বা ছবিটা আটকে দেওয়ার যুক্তি কী ?

জয়া আরও বলেন, হোলি আর্টিজান ঘটেনি ? আমাদের মন থেকে ধুয়েমুছে গেছে ? সত্যি বলতে কী, এই ঘটনা কখনোই আমাদের মন থেকে মুছে যেতে পারে না। মুছে যেতে দেওয়া যায়ও না। যে ঘটনার পুনরাবৃত্তি আমরা মোটেও চাই না, আমাদের ছেলেমেয়েদের সামনে থেকে যে পথ চিরকালের জন্য অবরুদ্ধ করে রাখতে চাই, হোলি আর্টিজানের ঘটনা তার জোরালো সতর্কঘণ্টা হিসেবে মন থেকে মনে বাজিয়ে যেতে হবে।

চলচ্চিত্র হচ্ছে ঘুম ভাঙানোর ঘণ্টা এমনটাই মনে করেন জয়া। ঘণ্টা বাজিয়ে ঘুম থেকে আমাদের মনটাকে জাগিয়ে তোলা তো চলচ্চিত্রেরই একটা কাজ। আমরা চলচ্চিত্রের মুক্তি চাই, সব শিল্পের মুক্তি চাই। কারণ আমরা মানুষের মুক্তি চাই।

Previous articleপরীমণি পুত্র সন্তানের ছবি প্রকাশ করলেন
Next articleবলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির শুটিংয়ে পা ভাঙলেন!

Leave a Reply