জমজমাট ডেস্ক

নানা সংকট কাটিয়ে ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির (বাচসাস) নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ২ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে বাচসাসের ২০২২-২০২৪ মেয়াদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ফরিদ বাশার।

বাচসাস সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আপনারা কোন অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবেন না। বাচসাস নির্বাচন নির্ধারিত দিনেই অনুষ্ঠিত হবে। আপনাদের সহযোগিতা একান্তভাবে কামনা করছি।’

বুধবার (৩ আগস্ট) বাচসাসের পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাচসাস পরিচালনা নীতিমালার অধ্যায় ১৩ এর ১ ধারা অনুযায়ী বাচসাস নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়ে থাকে।

অধ্যায় ১৩ এর ১ ধারায় রয়েছে- ‘নির্বাহী পরিষদের নির্বাচন: নির্বাহী পরিষদের নির্বাচন গোপন ব্যালটে ও একজনের এক ভোট এই নীতির ভিত্তিতে দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভায় অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন পরিচালনায় প্রচলিত বিধি অনুসরণ করতে হবে এবং নির্বাচন পরিচালনার জন্য নির্বাহী পরিষদ একজনকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং দুইজনকে সদস্য করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিশনার নিয়োগ করবে। এক্ষেত্রে প্রয়োজনে বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব জার্নালিস্ট (বিএফিইউজে)-র মডেল অনুসরণ করা যেতে পারে। বাচসাস পরিচালনা নীতিমালায় ২০১৭ সালের ২১ জুলাই সাধারণ সভায় সংশোধিত আকারে একটি প্রস্তাবনা সন্নিবেশিত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সাধারণ সভায় অনুমোদিত সিদ্ধান্ত, কার্যনির্বাহী কমিটির প্রথম বৈঠকেই পরবর্তী নির্বাচন কমিশন গঠন করবে। নির্বাহী কমিটির মেয়াদকাল উত্তীর্ণের ৩০ (ত্রিশ) দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যর্থ হলে নিয়মতান্ত্রিকভাবে নির্বাচন কমিশনের দায়িত্বে চলে যাবে।’

এই নীতিমালার আলোকে ২০১৯-২০২১ মেয়াদে নির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির প্রথম সভায় গঠিত কমিশনের প্রধান সদস্য হিসেবে আমি (ফরিদ বাশার) এবং সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন সর্বজনাব আবুল হোসেন মজুমদার, এরফানুল হক নাহিদ, মোঃ মাহবুবুর রহমান আলমগীর ও রেজাউল হক রেজা। অতএব নীতিমালা অনুযায়ী ২০১৯-২০২১ মেয়াদে নির্বাচিত কমিটির ১ম সভায় যে নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়েছে সেই কমিশন এখনো কার্যকর আছে এবং এই কমিশন ২০২২-২০২৪ মেয়াদে বাচসাস নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। সেই তফসিল মোতাবেক নির্বাচন অনুষ্ঠানের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। উক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ০২ সেপ্টেম্বর, রোজ শুক্রবার ২০২২ ইং। এই বিষয়ে কোনো বিভ্রান্তির সুযোগ নেই।

আরও উল্লেখ্য, বাচসাস নীতিমালার অধ্যায় ১৩ এর ১ ধারা অনুযায়ী ২০১৯-২০২১ মেয়াদে কার্যনির্বাহী কমিটির মেয়াদ উর্ত্তীর্ণের পর গঠিত নির্বাচন কমিশন নির্বাচন অনুষ্ঠানের দায়িত্বপ্রাপ্ত আছে। আমার (ফরিদ বাশার) নেতৃত্বাধীন কমিশনের সদস্যদের পূর্ণ সহযোগিতায় কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। কমিশন থেকে কোন সদস্যদের পদত্যাগ করার কোন বিষয় আমি বা কমিশন অবহিত নই বিধায় আমি (ফরিদ বাশার) মনে করি এই কমিশন পূর্ণ কার্যকর আছে। তাছাড়া বাচসাস নীতিমালা অনুযায়ী মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটির নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের কোনো বিধান বা সুযোগ নেই।

Previous articleসুরের সাথেই হোক আগামীর বসবাস : লাভলী দেব
Next articleএবার ‘হাওয়া’ সিনেমার বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ

Leave a Reply