বিনোদন প্রতিবেদক

আবার এসেছে আষাঢ় আকাশ ছেয়ে, আসে বৃষ্টির সুবাস বাতাস বেয়ে, এই পুরাতন হৃদয় আমার আজি পুলকে দুলিয়া উঠিছে আবার বাজি। বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মতো এই আষাঢ়ে সবার হৃদয় পুলকে দুলিয়া ওঠে নবযৌবনা সবুজের সাথে নীলের পরশে। নীল রঙ খুব সহজেই মনে শান্ত ভাব জাগিয়ে তুলে । নীল রঙ আভিজাত্য, শান্তি, একতা, সম্প্রীতি, প্রভৃতি ভাব প্রকাশে ব্যবহৃত হয়। নীল হলো স্বপ্নদায়ক, স্রষ্টা, শিল্পী এবং উদ্ভাবকদের রঙ। নীল রঙ মস্তিস্কে এমন কিছু রাসায়নিক পদার্থ নিঃসরন করে, যা মস্তিস্ককে শান্ত রাখে। রক্তচাপ ও হৃদস্পন্দনের হার কমাতে সাহায্য করে। এই নীলকে বরন করতেই বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো ফ্যাশন সচেতনদের ভালোবাসার ফ্যাশন ব্র্যান্ড বিশ্বরঙ আয়োজন করেছে “নীল উৎসব”এর।

বিশ্বরঙয়ের কর্ণধার ও দেশের আইকনিক ফ্যাশন ডিজাইনার বিপ্লব সাহা নীল উৎসব নিয়ে বলেন, উৎসব পার্বন উদযাপনে বিশ্বরঙ সবসময়ই অগ্রপথিক, সুদীর্ঘ ২৭ বছর ধরে। সেই ধারাবাহিকতায় ১৬ জুন ২০২২ থেকে চাাঁদরাত পর্যন্ত বিশ্বরঙ এর সকল শোরুমে চলবে “নীল উৎসব”।

তিনি জানান, “নীল উৎসব” উপলক্ষে শাড়ী, থ্রিপিছ, সিঙ্গেল কামিজ, পাঞ্জাবী, ফতুয়া, শার্ট ইত্যাদিতে তুলে ধরা হয়েছে প্রকৃতি থেকে নেয়া নীল ফুলের অনুপ্রেরনায় ফ্লোরাল মোটিফ আর নীল, সাদা রঙের বিভিন্ন গ্রাফিক্যাল জ্যামিতিক ফর্মের অনবদ্য উপস্থিতি এবং গরমের কথা মাথায় রেখে কাপড় ব্যবহার করা হয়েছে স্বাভাবিক ভাবে ব্যাবহার উপযোগী আরামদায়ক সুতি, লিলেন, ভয়েল, স্লাব কাপড়। আর পোশাক গুলোতে নীল এর পাশাপাশি রয়েছে প্রাকৃতিক রঙের অনন্য ব্যবহার, কাজের মাধ্যম হিসাবে এসেছে টাই – ডাই, ব্লক, বাটিক, এ্যাপলিক, কাটওয়ার্ক, স্ক্রিনপ্রিন্ট ইত্যাদি।

Previous articleপরীমণির মামলায় পাঁচ বছর পর্যন্ত সাজা হতে পারে
Next articleস্তনের তিল দেখিয়েই ভাইরাল নোরা ফাতেহি

Leave a Reply