রঞ্জু সরকার
ঢাকা শহরের মিরপুর এলাকার সড়কগুলো বাস মালিকরা অবৈধভাবে দখল করে সেখানে কাতারে-কাতারে বাস পার্কিং করছে। ফলে সমস্যায় পড়ছেন চলাচলকারীরা। এধরনের অবৈধ দখলদারীর বিরুদ্ধে কথা বলছেন না কেউই। আর কেউকেউ প্রতিবাদ করেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। কর্তৃপক্ষ এসব বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নিতেও নারাজ।
রাস্তা দখল করে সারিসারি বাস রাখায় ক্ষুব্ধ হয়ে ফেইসবুকে সড়ক দখলের ছবিসহ স্ট্যাটাস দিয়েছেন অভিনেতা সুজাত শিমুল। ‘কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি’ শিরোনামে তিনি লিখেছেন:
“গতরাতে মিরপুর চিড়িয়াখানা রোড থেকে তোলা।। প্রায় তিনশো ফিটের ও বেশি প্রশস্ত রাস্তার সিংহভাগই বাস মালিকদের দখলে।। ফুটপাত সহ মুল রাস্তার অর্ধেক বিভিন্ন ওয়ার্কশপ এর দখলে। কে করবে এদের বিচার?? কে দেখবে এইসব অসঙ্গতি?? যাঁরা শহরের সভ্যজন, নিয়মিত সরকারের ভ্যাট ট্যাক্স পরিশোধ করেন তাঁরা রীতিমত এইসব দখলদারদের কাছে জিম্মি এবং নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত।। তাহলে কোন দুঃখে সভ্যজনেরা নাগরিক দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করবেন???”
জানা গেছে মিরপুর এলাকার সড়কগুলো যেমনিভাবে বাস মালিকদের দখলে, ঠিক একইভাবে রাস্তার পাশের ফুটপাথ দখল করে রেখেছে হকাররা। বছরের-পর-বছর এভাবেই চলছে। ওই এলাকায় সরকারের পদস্থ অনেক কর্মকর্তা বসবাস করলেও এসব বিষয়ে ওনাদের অভিযোগ আমলে নিচ্ছেন না সংশ্লিষ্টরা।
শুধু মিরপুর এলাকাই নয়, ঢাকা শহরের অনেক এলাকাতেই বাস মালিকদের এমন দৌরাত্ম্য নিত্যদিনের ঘটনায় পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে মহাখালী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায়।
অভিযোগ আরো আছে। গাজীপুর জেলা থেকে রাজধানীর সায়েদাবাদ পর্যন্ত চলাচলকারী বাসগুলো প্রতিদিনই বেপরোয়াভাবে মহাসড়কে চলাচল করে দুর্ঘটনা ঘটাচ্ছে। ওই বাসগুলোর বেশিরভাগ পুরনো এবং ত্রুটিপূর্ণ যা ঢাকা শহরের সৌন্দর্য নষ্টের পাশাপাশি পরিবেশ নষ্ট করছে। সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্পের বদৌলতে যখন ঢাকা উন্নত দেশগুলোর রাজধানীর মতোই আধুনিক রূপ নিচ্ছে তখন এভাবে শহরের রাস্তায় বাস মালিকদের দখলদারি কিংবা ত্রুটিপূর্ণ পুরনো বাস চলাচল বন্ধে কর্তপক্ষের জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন। ত্রুটিপূর্ণ এবং তিন বছরের বেশী পুরনো বাস যেনো কোনো অবস্থাতেই টঙ্গী ব্রীজ অতিক্রম করে ঢাকা শহরে ঢুকতে না পারে এটা নিশ্চিত করতে পুলিশ প্রশাসনের ব্যবস্থা নিতে হবে।
অভিযোগ আরো আছে। রাজধানীর বিভিন্ন আবাসিক এলাকায়, যেমন উত্তরায় বাড়ীর মালিকরা নিজেদের ইচ্ছেমাফিক রাস্তা ব্লক করে সেগুলো পার্কিং স্থানে পরিণত করে যানবাহন চলাচলে মারাত্মক বিঘ্ন ঘটালেও এবিষয়ে সংশ্লিষ্টদের কোনোই দৃষ্টি নেই। ওই এলাকার বাসা মালিকরা নিজেদের মর্জি মাফিক শুধু রাস্তা ব্লক করেই ক্ষান্ত হচ্ছেন না, তারা এসব অপকর্ম করছেন ট্রাফিক বিভাগের নাম ব্যবহার করে। অথচ দেশের প্রচলিত আইনে চলাচলের জন্যে নির্মিত সড়ক অবরোধ কিংবা ব্লক করে রাখা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
Previous articleদেশের প্রথম পাতাল রেলের কাজ সেপ্টেম্বরে শুরু
Next articleশিগগির বুস্টার ডোজ নিন করোনা সংক্রমণ বাড়ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Leave a Reply