জমজমাট ডেস্ক

এবার মুখ খুললেন মৌসুমী-সানি দম্পতির সন্তান ফারদিন। দৈনিক প্রথম আলোকে জায়েদ খান প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, জায়েদ খান তার ব্যবসারও ক্ষতি করার চেষ্টা করেছেন। তিনি আরো বলেন: ‘তার তো কোনো সিনেমা নেই, কোনো কাজ নেই। কাজ না থাকলে যা হয়। আমরা সবাই ব্যস্ত থাকি। তার না আছে ক্যামেরার জীবন, না আছে অন্য জীবন। যার কিছুই থাকে না, তার টার্গেট থাকে যার কিছু থাকে তারটা নিয়ে সে নষ্ট হবে বা তারটা নিয়ে সে ভালো হবে। এটা ইন্ডাস্ট্রির সবাই জানে। এফডিসির সবাই আমার পরিচিত। আঙ্কেল খালা মামা। আমি ইন্ডাস্ট্রির ভাগনে, ভাতিজা, ছেলে। তাদের কে বলতে হয় জায়েদ খান নিম্ন মানের মানুষ।’

প্রথম আলোর রিপোর্ট অনুযায়ী, বাবা–মাকে সব সময় সবার আগে গুরুত্ব দেন ফারদিন। বেশ কিছুদিন আগে থেকেই বুঝতে পারছিলেন তার মায়ের মন খারাপ। মায়ের বক্তব্য নিয়ে মায়ের ভক্তদের উদ্দেশ করে এ সময় ফারদিন বলেন, ‘চিত্রনায়িকা মৌসুমির পেছনে একটি মানুষ আছে। মানুষ রাগ করে অনেক সময় অনেক কিছু বলে। আম্মু আব্বুর ওপর রাগ করে কথাগুলো বলেছেন।’

আর আমি গত তিন চার মাস ধরেই বুঝে আসছি জায়েদ ক্ষতি করার চেষ্টা করছেন। ঘটনার দিন রাতে তিনি আমাকে পুলিশকে দিয়ে ফোনও দিয়েছে। তাকে ইন্ডাস্ট্রির অনেকেই পছন্দ করেন না।’

ফারদিন বলেন, ‘তিনি (জায়েদ খান) থাপ্পড় খাওয়ার যোগ্য দেখেই থাপ্পড় খেয়েছেন। আর আমার বাবা পাগল না। বুঝেই সেসব করেছেন। মায়ের দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছেন তিনি। তাকে প্রপারলি শাস্তি দিয়েছেন আব্বা।’

এবার প্রশ্ন থেকে যায়, তাহলে জায়েদ খান সম্পর্কে মৌসুমী যে সাফাই বক্তব্য দিয়েছেন, সেটা সত্যি নাকি তার সন্তান ফারদিন এর কথা সত্যি! আরো একটা প্রশ্ন সামনে আসলো, আলোচিত অভিনেতা ডিপজলই বা কেনো ওনার ছেলের বিয়েতে ঘটে যাওয়া ঘটনার কথা অস্বীকার করলেন? এটা কি জায়েদ খানকে সেইভ করতে?

Previous articleবেলাল সানির পরিচালনায় ওয়েব ফিল্ম ‘ডেড বডি’ তারা তিনজন
Next articleআজ দেশ সেরা ৪৫ শিল্পী বরিশালে ‘জয় বাংলা’ কনসার্ট মঞ্চ মাতাবেন

Leave a Reply