জমজমাট ডেস্ক

গোটা বিশ্বেই মুক্তি পায় হিন্দি ছবি। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় বলিউড ছবির কাটতি বেশি। বিগত বছরগুলোয় সেই পথে পা বাড়িয়েছে তামিল, তেলেগুসহ ভারতের অন্য আঞ্চলিক সিনেমাগুলো। সর্বশেষ ‘কেজিএফ ২’ কানাডাতে রেকর্ড ব্যবসা করেছে। এবার একই পথে হাঁটছে বাংলাদেশি সিনেমাও।

গত ২৭ মে উত্তর আমেরিকার ১১২ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘পাপ পুণ্য’। এখনো দেশটির বেশ কিছু থিয়েটারে ছবিটি চলছে। একইভাবে ‘শান’ মালয়েশিয়া ঘুরে বর্তমানে চলছে ফ্রান্সের প্যারিসে। এছাড়া আগামী ২৪ জুন থেকে উত্তর আমেরিকার ৮০টি থিয়েটারে চলবে ছবিটি। অন্যদিকে আন্তর্জাতিক কয়েকটি উৎসবে প্রদর্শনীর পর গত ৫ মে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে মুক্তি পেয়েছে ‘রিকশা গার্ল’। এর ফলে বিদেশের মাটিতে দেশি সিনেমা দেখার সুযোগ পাচ্ছেন প্রবাসী বাংলাভাষী দর্শকরা। যে কারণে তাদের মাঝেও দেশের সিনেমার ব্যাপারে আগ্রহ তৈরি হয়েছে। প্রযোজক-পরিচালকরা জানিয়েছেন, ধারাবাহিকভাবে ভালো ছবি নিয়মিত মুক্তি দিতে পারলে বিদেশে তৈরি হতে পারে বাংলাদেশি সিনেমার বাজার।

ইউরোপ-আমেরিকায় দেশি ছবির সম্ভাবনা প্রসঙ্গে অমিতাভ রেজা আরো বলেন, ‘দেশের বাইরে বাংলাভাষী অনেক দর্শক আছেন। দেশের টানে তারা দেশি সিনেমা দেখতে চান। তবে অবশ্যই এসব দর্শকের কথা মাথায় রেখে বাংলাদেশের সংস্কৃতির আবহে সিনেমা বানাতে হবে। বিদেশের মাটিতে দেশি সিনেমার বাজার বাড়াতে হলে গুণগত মানের বিকল্প নেই। কেননা হলিউড, বলিউডের সিনেমা দেখে অভ্যস্ত তারা।’

দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে মন্দাভাব চলছে। এছাড়া মরার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে দাঁড়ায় করোনা মহামারি। এই সময়ে চলচ্চিত্রপাড়া যেন ঝিমিয়ে পড়েছিল। ধারাবাহিকভাবে কমে গিয়েছে সিনেমা হলের সংখ্যা। মৌসুমি হল ছাড়া বর্তমানে চালু হলের সংখ্যা ৫০ থেকে ৬০টি। দেশীয় হলের সংখ্যা কমলেও আশা দেখাচ্ছে বাণিজ্যিকভাবে দেশের বাইরে সিনেমা মুক্তির বিষয়টি। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এখন দেশের বাইরে সিনেমা মুক্তির সংখ্যা বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে হলের সংখ্যাও।

বিদেশে ঢালিউডের সিনেমা মুক্তিতে কাজ করছে বেশকিছু প্রযোজনা সংস্থা। যুক্তরাষ্ট্রে ‘রিকশা গার্ল’ সিনেমাটির পরিবেশনায় রয়েছে বায়োস্কোপ ফিল্মস। এছাড়া ‘শান’ ও ‘পাপ পুণ্য’ সিনেমা দুটি দেশের বাইরে পরিবেশনার দায়িত্বে আছে স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো। আগামী ঈদুল আজহায় আমেরিকায় মুক্তি পেতে যাচ্ছে এসএ হক অলিক পরিচালিত ‘গলুই’। এই সিনেমাটিও আমেরিকাতে প্রদর্শনীর দায়িত্বে রয়েছে বায়োস্কোপ ফিল্মস।
এদিকে আগামী ১ জুলাই আমেরিকার লাসভেগাসে এনএবিসি ফিল্ম ফেস্টিভালে প্রিমিয়ার হবে অনন্য মামুনের ‘রেডিও’ সিনেমাটি। সবকিছু মিলে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি যেন নতুন করে আশার আলো দেখছে। আন্তর্জাতিকভাবে সিনেমা মুক্তিতে সিনেমা ব্যবসায়ীরাও আশায় বুক বাঁধছেন। বিষয়টি ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন সিনেমা-সংশ্লিষ্টরাও।

চলচ্চিত্র বিশ্লেষক অনুপম হায়াৎ বলেন, সিনেমার এই ক্রান্তিকালে দেশের বাইরে সিনেমা মুক্তি খুব ইতিবাচক দিক। এর ফলে সিনেমার মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের পথ তৈরি হচ্ছে। বর্তমানে দেশে এখন যে পরিমাণ সিনেমা হল আছে তাতে সিনেমা মুক্তি দিয়ে বিনিয়োগকৃত টাকা উঠিয়ে আনা অনেক কষ্টকর। দেশের বাইরে সিনেমা মুক্তি পেলে লগ্নিকৃত টাকা উঠিয়ে আনা সহজ হয়ে যাবে। প্রযোজকরা যদি লাভবান হন তা হলে তারা ধারাবাহিকভাবে সিনেমা নির্মাণ করবেন। তবে মনে রাখতে হবে দেশের বাইরে সিনেমা মুক্তি পাওয়া মানে সিনেমার মাধ্যমে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা। তাই সিনেমা নির্মাণের ক্ষেত্রে গল্পকে প্রাধান্য দিতে হবে। এমন গল্পের সিনেমা নির্মাণ করতে হবে, যেটা বিদেশে বাংলাদেশের সংস্কৃতি তুলে ধরবে। আরো একটি দিক রয়েছে সেটা হলো আমি চাইব দেশের সিনেমা হলে যেভাবে সিনেমা প্রদর্শিত হওয়ার আগে সেন্সর হয়, একই নিয়ম মেনে যেন দেশের বাইরে সিনেমাগুলো মুক্তি পায়।

দেশের বাইরে সিনেমা মুক্তির প্রসঙ্গে প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘দেশে সিনেমা হলের সংখ্যা এতটাই কমে গেছে যে, যারা শুধু সিনেমা ব্যবসা করত তারা এখন ইন্ডাস্ট্রি থেকে সরে দাঁড়িয়েছে। এখন সিনেমা ব্যবসার পাশাপাশি অন্য ব্যবসা যারা করছেন তারাই টিকে আছেন। একজন প্রযোজক যদি দেশে ও দেশের বাইরে সিনেমা মুক্তি দিয়ে তাদের লগ্নিকৃত টাকা ফেরত পান সেটা তো পুরো ইন্ডাস্ট্রির জন্য ভালো। যখন বিনিয়োগকারী তার টাকা উঠিয়ে নিয়ে আসতে পারবেন তখন তারা পরবর্তী সিনেমা নির্মাণ করতে আগ্রহী হবেন। এ ছাড়া আমাদের সিনেমাগুলো বিদেশি কোনো ওটিটি প্ল্যাটফর্মে দেখা যায় না। এমন অবস্থায় যদি সেখানকার সিনেমা হলগুলোতে আমাদের দেশের সিনেমা মুক্তি দেয়া যায়, সেটা আমাদের জন্য আশীর্বাদ। এর ফলে দেশের বাইরে অবস্থান করা বাংলাদেশিরা দেশীয় সিনেমা উপভোগ করতে পারবেন।’

২০১৬ সালের শুরুর দিকে ‘অস্তিত্ব’, ‘মুসাফির’, ‘সম্রাট’ ছবিগুলো দেশের বাইরে মুক্তি পায়। ওই সময় ছবিগুলো অতটা সুবিধা করতে না পারলেও পরবর্তীকালে ‘শিকারি’, ‘আয়নাবাজি’, ‘নবাব’ ছবিগুলো দেশের বাইরে দর্শক আলোচনায় আসে।

Previous articleযুদ্ধাপরাধী ফাঁসির আসামীর নামে সরকারী বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনে বছরের পর বছর কর্তৃপক্ষের গড়িমসি
Next articleবিতর্কিত সেলিম খানকে এক কোটি টাকা জরিমানা

Leave a Reply