জমজমাট ডেস্ক:

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান বানচাল করতে শ্রমিক আন্দোলনের নামে ভাঙচুর করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

সোমবার (৬ জুন) মিরপুর ও উত্তরায় শ্রম অসন্তোষ নিরসনে শ্রম ভবনে ত্রিপক্ষীয় সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সভা আয়োজন করে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর।

সংবাদ সম্মেলনে শাজাহান খান বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ঊর্ধ্বগতিতে শ্রমজীবী মানুষের অসুবিধা রোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্মরত পোশাক শ্রমিকদের মাঝে কার্ড প্রদান করার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েছেন। উক্ত কার্ড দিয়ে শ্রমিকরা স্বল্পমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করার সুযোগ পাবেন।

তিনি বলেন, শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান দেশে ফেরার পর শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির লক্ষ্যে নিম্নতম মজুরি বোর্ড গঠনের বিষয়ে স্বল্পতম সময়ের মধ্যে উদ্যোগ নেবেন। এসময় মঙ্গলবার থেকে কারখানা খোলা রাখার এবং শ্রমিকদের কাজে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মিরপুর ও উত্তরায় শ্রম অসন্তোষের বিষয় তিনি বলেন, শ্রমিকরা কখনো প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করতে পারে না। এটা তৃতীয় পক্ষের ইন্ধন। কোনো রাজনৈতিক দলের ইন্ধনে হচ্ছে। বিএনপি চেষ্টা করছে এই আন্দোলনের সুফল নিয়ে শ্রমিকদের উপর ভর করে ক্ষমতায় আসতে।

সভায় চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বিএম কন্টেইনার ডিপো লিমিটেড কারখানায় অগ্নিদুর্ঘটনায় আহত ও নিহত পরিবারের প্রতি শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেন তিনি।

তিনি বলেন, আগামী ২৫ তারিখে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ প্রকল্প পদ্মা সেতু উদ্বোধনের অনুষ্ঠান রয়েছে। এ অনুষ্ঠানকে বানচাল করার জন্য গার্মেন্টস সেক্টরে অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে বিএনপি।

সভায় সভাপতিত্ব করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (যুগ্ম সচিব) মিনা মাসুদ উজ্জামান। উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ’র ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নজরুল ইসলাম, জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি মো. আলাউদ্দিন মিয়া, জাতীয় গার্মেন্ট শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন প্রমুখ।

Previous articleভারতের কূটনীতিকে বড় এক প্রশ্নের মুখে দাঁড় করালেন নূপুর শর্মা
Next articleসীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণে দগ্ধ চিকিৎসার পুরো ব্যয়ভার বহন করবে সরকার

Leave a Reply