কলেজ জীবনের প্রেম নাকি প্রেম প্রেম ভাব কিন্তু প্রেমের অভাব! এবার প্রেমের অভাব পূরণে করতে কলেজ প্রেমের গল্প নিয়ে পর্দায় এসেছে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের নতুন ছবি ‘এক্স=প্রেম’। আর মোবাইল গেমের নেশায় বুঁদ এক শিশুর ভার্চ্যুয়াল জগতে হারিয়ে যাওয়ার গল্প বলছে রাজ চক্রবর্তীর পরিচালিত নতুন ছবি ‘হাবজি গাবজি’। ভারতীয় কলকাতার এই বাংলা ছবি দুটি মুক্তি পেয়েছে ৩ জুন শুক্রবার। জানা গেছে, একই দিনে মুক্তি পাওয়ায় হল নিয়ে টলিউডের এই দুই তারকা নির্মাতার মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে।

কলকাতার গণমাধ্যম থেকে জানা গেছে, দুই নির্মাতার দ্বন্দ্বের শুরু নন্দন – ১ সিনেমা হল নিয়ে। রাজের ‘হাবজি গাবজি’ ছবিটি নন্দন – ১ এ প্রদর্শন চলছে। কিন্তু সৃজিতের ‘এক্স=প্রেম’ সেখানে প্রদর্শনের সুযোগ পায়নি। এই জন্যেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সৃজিত লিখেছেন, একই দিনে মুক্তি পাচ্ছে দুটি সিনেমা। দুজনই নন্দন – ১ এর জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু মাত্র একজন ছাড়পত্র পেয়েছেন। আদর্শগত ও ন্যায়সংগত কারণে দুটি ছবিরই ছাড়পত্র পাওয়া উচিত ছিল। আর এটা না হলে একজনও পাবেন না। সৃজিতের এমন কথায় চুপ থাকেননি রাজও। পাল্টা জবাবে তিনি লেখেন, ‘হাবজি গাবজি’ নিয়ে কন্ট্রোভার্সি করে লাভ নেই।

জানা গেছে, রাজ ও সৃজিতের মধ্যে এই দ্বন্দ্ব খুব বেশি দূর এগোয়নি। শুক্রবার ফেসবুক লাইভে এসে সৃজিত জানিয়ে দেন, রাজ তার ভালো বন্ধু। ফেসবুক লাইভে তিনি বলেন, তার একটা ছবি ‘এক্স=প্রেম’ মুক্তি পেয়েছে।

নন্দন – ১ থেকে যখন তিনি জানতে পারেন তার ছবি দেখানো হবে না প্রথম ফোনটা তিনি রাজকেই করেছিলেন। রাজ উত্তরে জানিয়েছিলেন, তিনি জানেন না কেন ‘এক্স=প্রেম’ ছাড়পত্র পায়নি নন্দনে। সেই সময় নাকি ‘হাবজি গাবজি’ নন্দন থেকে সরিয়ে নেওয়ার প্রস্তাবও দেয় রাজ, যাতে ‘এক্স=প্রেম’ চলতে পারে।
সৃজিত লাইভে তার পোস্টের বিষয় স্পষ্ট করেন। তিনি বলেন, আমি কারও বিরুদ্ধে বা কোনো ছবির বিরুদ্ধে কিছু লিখিনি। রাজ চক্রবর্তী বা তার ছবি ‘হাবজি হাবজি’ নিয়ে তো নয়ই। কারণ, রাজ আমার ভালো বন্ধু। শুধু জানতে চেয়েছিলেন, ছবিটি নন্দনে প্রদর্শনের ছাড়পত্র না পাওয়ার কারণ। এর সঙ্গে তিনি বলেন, তিনি চান ‘হাবজি গাবজি’ আর এক্স=প্রেম দুটোই ভালো চলুক। সিনেমা হলে লোক আসুক।

নিজের ফেসবুক লাইভের শেষের দিকে সৃজিত বলেন, রাজ বোধ হয় একটু অভিমান করছে আমার ওপর। আমারও একটু খারাপ লেগেছে। ছবিটি নন্দনে সিলেকশন না হওয়ায় আমার কোনো সমস্যা ছিল না। আমার খারাপ লেগেছে এ জন্য, সিলেকশন না হওয়ায় কারণ জানানো হচ্ছে না আমাকে। ছবিটি যেহেতু শিক্ষার্থীদের জন্য, তাই নন্দনে হল না পাওয়ায় আপত্তি তুলেছিলাম। কারণ, ওরা তো অনেক টাকা দিয়ে মাল্টিপ্লেক্সে যেতে পারে না। তাহলে আমরা এমন ধরনের ছবি বানানোর আগে ভাবতাম।

Previous articleএতগুলো মানুষের আকস্মিক মৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না: জয়া আহসান
Next articleএবার ভাইজান খ্যাত সালমান খানের সঙ্গে তার বাবা সেলিম খানকে হত্যার হুমকি!

Leave a Reply