বিশেষ প্রতিবেদন

নাগরিক টিভি নামের অপরাধচক্রের হোতা টিটু অবশেষে রহমান দোষ স্বীকার করেছে। কিন্তু ওই দোষ স্বীকারের মাঝেও ছিলো কারসাজি।  সে সারা দেশবাসী ও তার দর্শকদের কাছে ক্ষমা চেয়েছে। সে এবং তার টিম লোভে পরেই এমন কাজ করেছে বলেই স্বীকারোক্তি দিয়েছে। তবে তার কথার মাঝে কিছুটা কারসাজিও ছিলো। সে দাবী করে, তারা নাকি বসুন্ধরা গ্রুপের কাছে চাঁদা চায়নি, আর্থিক ক্ষতিপূরণ চেয়েছে। আরো বলে, তাদের উচিত ছিলো আইনজীবির মাধ্যমে কথা বলা। সে চক্রের সবার হয়েই ক্ষমা চায় এবং ভুল করেছে বলে জানায়। অথচ এই অপরাধ চক্রের আরেক হোতা এম রহমান মাসুম বলছে, টিটো রহমান আর নাজমুস সাকিব মিলে ইতোপূর্বে অন্তত ১০ কোটি টাকা নিয়েছে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং ব্যাক্তির কাছ থেকে।

এদিকে বিএনপি-জামাত ঘরানার আরেক সাইবার অপরাধী আব্দুর রব ভুট্টো ইউটিউব লাইভে এসে বলেছেন, নাগরিক টিভি নামীয় অপরাধচক্রের মূল কাজ ছিলো মানুষকে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের ফাঁদে ফেলে টাকা হাতিয়ে নেয়া। তিনি বলেন, টিটো রহমান জীবনে কখনো সাংবাদিকতা না করেই নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বেড়ায়। কিন্তু টিটো, নাজমুস সাকিবসহ নাগরিক টিভি নামীয় অপরাধচক্রটির মূল কাজই হচ্ছে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের এবং চাঁদাবাজি।

অন্য আরেকটি সূত্র বলছে, এক সময় ব্রিটেনে পলাতক বিএনপির মিনি বস তারেক রহমানের চাঁদাবাজির হাতিয়ার ছিলো নাগরিক টিভি অপরাধচক্র। কিন্তু বসুন্ধরা গ্রুপের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করতে গিয়ে এই অপরাধচক্রটি ফেঁসে যাওয়ায় তারেক নিজেই তার অনুগত ইউটিউব বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়েছে নাগরিক টিভির বিরুদ্ধে, যাতে কোনোভাবেই ওই চ্যানেলের সাথে তার মাখামাখির বিষয়টা প্রকাশ না পায়।

এদিকে, নাগরিক টিভি অপরাধ চক্রের সাথে মূল মন্ত্রণাদাতা বা উপদেষ্টা হিসেবে যার নামটি উঠে এসেছে তিনি হলেন তাজুল ইসলাম হাশমি ওরফে তাজ হাশমি ওরফে শিয়া হাশমি। জানা গেছে, শিক্ষকতার ছদ্মাবরণে তাজুল ইসলাম ওরফে তাজ হাশমি ইরানের শাসক গোষ্ঠীর ভয়ংকর সংস্থা ইসলামিক রিভোলিউশনারী গার্ড কর্পস বা (আইআরজিসি) এর কাছ থেকে নিয়মিত ভাতার বিনিময়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্বে ইরানের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তি করেন। ড. তাজুল ইসলাম হাশমি ওরফে তাজ হাশমির আরেকটা মিশন হলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় ইরানের শাসক গোষ্ঠী বিরোধী গণতন্ত্রকামীদের ওপর নজরদারী।

আরো জানা গেছে, টিটো রহমান, নাজমুস সাকিবসহ নাগরিক টিভি অপরাধচক্রের চাঁদাবাজি ও ব্যকমেইলিংয়ের টাকার একটা ভাগ পেতেন তিনি।

একটি সূত্র জানায়, নাগরিক টিভি অপরাধচক্রের সাথে এখনও ঘনিষ্ট যোগাযোগ রেখে যাচ্ছেন কানাডায় বসবাসরত ক্যাপ্টেন শহিদুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি, যার বিরুদ্ধে মাদকাসক্তি, যৌণ নিপীড়ন ও লাম্পট্যের নানা অভিযোগ আছে। কয়েক বছর আগে কানাডার টরোন্টো শহরে শ্রীলংকান এক তরুণীর সাথে অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তার সাথে দিনের-পর-দিন শারীরিক মেলামেশা চালিয়ে যেতে থাকেন এই শহিদুল। পরবর্তীতে ওই তরুণী গর্ভবতী হয়ে গেলে শহিদুল প্রথমে শ্রীলংকান তরুণীকে কখনোই দেখেননি বলে দাবী করেন। এরপর যখন বিষয়টা বাঙ্গালী কমিউনিটির কানে পৌঁছে যায় এবং ওই তরুণী মামলা করার হুমকি দেয়, তখন উপায়ান্ত না দেখে শহিদুল তাকে নগদ ক্ষতিপূরণ দিয়ে কোনোমতে পাড় পান।

কানাডার বাঙ্গালী কমিউনিটিতে শহিদুল ইসলামের পরিচয় বাটপার শহীদ কিংবা লুইচ্চা শহীদ হিসেবে। কেউকেউ মশকরা করে তাকে ম্যানহোল উকিল নামেও ডাকেন।

কি হতে যাচ্ছে নাগরিক টিভি অপরাধচক্রের সদস্যদের?

নাগরিক টিভি অপরাধচক্রের ব্ল্যাকমেইলিং ও চাঁদাবাজিসহ এদের নানা অপরাধ সম্পর্কে গত কয়েকদিন যাবত প্রভাবশালী ইংরেজী পত্রিকা ব্লিটজ-এ ধারাবাহিক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হতে থাকলে নড়েচড়ে বসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ব্রিটেনের আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো। এরই মাঝে ব্লিটজ-এর কয়েকটি রিপোর্টে প্রমাণাদি উপস্থাপন করে ফাঁস করা হয় নাগরিক টিভি অপরাধচক্রের সাথে আরেক ভয়ংকর অপরাধীর ঘনিষ্ট সম্পর্কের খবর। ওই অপরাধীর নাম যুলকারনাইন শায়ের খান সামি, ওরফে যুলকারনাইন সামি ওরফে তানভীর খান ওরফে ৪২০ সামি। বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে গিয়ে হাঙ্গেরীতে আশ্রয় নেয়া সামি মাদক চোরাচালান, সেক্স ট্যুরিজম, এসকর্ট সার্ভিস ইত্যাদির মতো অনৈতিক কাজকর্মের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করছিলো। এরই মাঝে তার সাথে যোগাযোগ ঘটে সুইডেনে পালিয়ে থাকা আরেক অপরাধী তাসনীম খলিল এর সাথে। তাসনিম খলিল দীর্ঘকাল থেকে ফিলিস্তিনি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হামাস এবং ইরানী মদদপুষ্ট হিজবুল্লাহর সাথে সম্পৃক্ত ছিলো। আর ওই যোগাযোগের বদৌলতে একজন ফিলিস্তিনি সাংবাদিকের মাধ্যমে তাসনিম খলিলের সাথে আল জাজিরা টিভির চেনাজানা হয়। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের মদদদাতা কাতার তসলিম খলিলদের মতো মন্দ লোকদের খোঁজে পশ্চিমা বিশ্বের বিরুদ্ধে কাজে লাগাতে। একারণেই তারা আল জাজিরার সাথে তাসনিম খলিলের যোগাযোগটা আরো মজবুত করে দিতে তাসনীম খলিলকে মাসোয়ারা দিতে শুরু করে। তাসনিম খলিলের অন্যতম দায়িত্ব হচ্ছে সুইডেনসহ পশ্চিমা বিশ্বে কাতারের হয়ে গোপন কিছু কাজকর্ম করা।

Previous articleনিজের সেই ভাইরাল ভিডিও দেখে ক্ষেপে গেলেন রিয়াজ
Next articleসিয়াম-পুজার ‘শান’ সিনেমা পার্বত্যবাসীদের বিকল্প ব্যবস্থায় দেখানো হচ্ছে

Leave a Reply