ভারতের বেশ সুপরিচিত হাসপাতাল চেন্নাইয়ের এমজিএম হেলথকেয়ার হসপাতাল। প্রতিষ্ঠানটি স্বাস্থ্যসেবা দেবে অভিনয় শিল্পী সংঘ, টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টেলিপ্যাব)সহ ৪০টি সংগঠন ও কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের সদস্যদের।

সোমবার (৩০ মে) রাতে হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ের বল রুমে একটি সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন টেলিপ্যাব সভাপতি মনোয়ার পাঠান, সাধারণ সম্পাদক সাজু মুনতাসির, অভিনেতা মোশাররফ করিম, শামীম জামান, অভিনেত্রী রুবিনা রেজা জুই, এমজিএম হেলথকেয়ারের ডিরেক্টর ডা. প্রশান্ত রাজা গোপালন, এমজিএম হেলথ কেয়ারের ডিরেক্টর এবং গ্রুপ হেড-ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস অ্যান্ড স্পাইনাস ডিসঅর্ডার ঘরকে, সিনিয়র কনসালটেন্ট এবং হেড ইএনটি, হেড অ্যান্ড নেক সার্জারি ডা. সঞ্জীব মোহান্তি, ইনস্টিটি লিভার ট্রান্সপ্লান্টে অ্যান্ড এইচপিবি সার্জারির ডিরেক্টর ডা. নিয়াগরাজন শ্রীনিবাসন এবং ক্লিনিক্যাল লিড ইনস্টিটিউট অব রোনাল সায়েন্সেস অ্যান্ড কিডনি ট্রান্সপ্লান্টের ডিরেক্টর ডা. ডি চন্দ্রশে করন।

অভিনয় শিল্পী সংঘের সভাপতি আহসান হাবিব নাসিম বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি কত সহজে শিল্পীরা সবকিছু করতে পারেন। তারই ধারাবাহিকতায় চেন্নাইয়ের এমজিএম হেলথকেয়ার হসপাতালের সঙ্গে আমাদের চুক্তি হলো। এখন থেকে সেখানে শিল্পীরা চিকিৎসা সেবা নিতে পারবেন কম খরচে। তাছাড়াও চিকিৎসা জন্য ভিসা প্রসেসিংসহ নানাবিধ সুবিধা পাবেন।’

এমজিএম হেলথকেয়ারের ডিরেক্টর ডা. প্রশান্ত রাজা গোপালন বলেন, ‘এখন থেকে আর কষ্ট করে চেন্নাইয়ে যেতে হবে না। বাংলাদেশে আমরা এমজিএম হেলথকেয়ার ফানেন্ট সেন্টার চালু করেছি। সেখান থেকে আমার চিকিৎসা দেবো। তার পাশাপাশি আমরা চেন্নাইয়ে চিকিৎসার জন্য ভিসা প্রসেসিংসহ নানাবিধ সুবিধা দেবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এমজিএম হেলথকেয়ার। দক্ষতা, পেশাদারিত্ব এবং প্রযুক্তির মাধ্যমে রোগীদের উন্নত ক্লিনিক্যাল সেবা প্রদানের একটি নিবেদিত প্রতিষ্ঠান এটি। নেলসন মানিকাম রোডের অবস্থিত অত্যাধুনিক এই হাসপাতালটিতে ৪০০টি শয্যা, ৫০টি বহিরাগত রোগীর পরামর্শ কক্ষ, শতাধিক ক্রিটিক্যাল কেয়ার বেড, ২৫০ চিকিৎসক, ৩০ ক্লিনিক্যাল বিভাগ, ১২টি অত্যাধুনিক উন্নত অপারেশেন থিয়েটার এবং ২৪x৭ ইমার্জেন্সি কেয়ারের ব্যবস্থা রয়েছে।

এখানে, অনেক বিশিষ্ট সার্জন এবং চিকিৎসক তাদের দক্ষতা এবং অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সংমিশ্রণে নিয়মিতই উন্নত সেবা প্রদান করে থাকেন। এমজিএন হেলথকেয়ার বর্তমানে এশিয়ার মধ্যে USGBC LEED প্লাটিনাম সার্টিফাইড গ্রিন হাসপাতাল।

Previous articleবিয়ের পিঁড়িতে দেব – রুক্মিণী!
Next articleমালয়েশিয়া গিয়ে ঝামেলায় পরলেন প্রভা

Leave a Reply