বিশেষ বিশেষ দিবসে অনেক ধরনের গল্পের নাটকই প্রচার হয়ে থাকে। কিন্তু কিছু নাটক একটু আলাদা গল্পের হবার কারণে দর্শকের কাছে অন্যরকম গ্রহনযোগ্যতা পায়। অপূর্ব ও ফারিণ অভিনীত ‘ত্যাগ’ নাটকটি ঠিক সেই ধরনের গল্পেরই একটি নাটক। রিজভী আলআমিনের গল্পে তরুণ নির্মাতা মেহেদী হাসান জনি নির্মাণ করেছেন নাটক ‘ত্যাগ’। আর এই নাটকেই দুটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন অপূর্ব ও ফারিণ। নাটকটিতে আরো অভিনয় করেছেন সাবেরী আলম, বাশার বাপ্পী’সহ আরো বেশ কয়েকজন।

নাটকটি গেলো ২৪ মে একটি ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হয়েছে। এরইমধ্যে নাটকটি ইউটিউবে মাত্র চারদিনে ১১ লক্ষ’রও বেশি ভিউয়ার্স উপভোগ করেছেন। নাটকটির গল্প প্রচলিত ঘরানার গল্পের নাটকের চেয়ে একদমই ব্যতিক্রম একটি গল্পের নাটক। পরিচালকের ভাষ্যমতে এই ধরনের গল্প নিয়ে এর আগে কখনোই নাটক নির্মিত হয়নি। এরইমধ্যে নাটকটিতে অভিনয়ের জন্য অপূর্ব, ফারিণ, পরিচালক জনি দারুণ সাড়া পাচ্ছেন।

অভিনেতা অপূর্ব বলেন,সবসময়ই আমি একটু ব্যতিক্রম ধরনের গল্পে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি, আগ্রহ প্রকাশ করি। অনেক গল্পই হয়তো এরইমধ্যে বলা হয়েগেছে নাটকে। তারপরও অনেক গল্প আমাদের অজানা থেকে যায়। সমাজে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হতে পারে বিধায় অনেক গল্প বলা হয়ে উঠেনা। কিন্তু সমাজের মানুষকে সচেতন করতে অনেক সময় আমাদের জরুরী সতর্কতার জন্য কিছু কিছু গল্প সামনে তুলে ধরা উচিত। জনি চমৎকার একটি গল্প নির্বাচন করেছে। নাটকটি প্রচারের পর বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছি।

নির্মাতা মেহদী হাসান জনি বলেন,অপূর্ব ভাইয়া সবসময়ই ভীষণ কো-অপারেটিভ। এই নাটকটির গল্প নির্বাচন থেকে শুরু করে নির্মাণের পুরো সময়টি ভীষণ আন্তরিকতা নিয় সহযোগিতা করেছেন। যথারীতি ফারিণও। যে কারণে একটি ভালো গল্প যথাযথভাবে দর্শকের মধ্যে তুলে ধরা সম্ভব হলো। আমার বিশ্বাস নাটকটি একটা সময় বাংলাদেশের সকল দর্শকউ উপভোগ করবেন।

এদিকে ফারিণ এই মুহুর্তে দেশের বাইরে আছেন। দেশে ফেরার পর আবারো তিনি নাটকের কাজে নিয়মিত হবেন। অপূর্ব এরইমধ্যে নাটকের কাজে ফিরেছেন। মাঝে কিছুটা অসুস্থ ছিলেন বিধায় বাসাতেই বিশ্রাম নিয়েছেন। গেলো ঈদে তার বেশকিছু নাটক দর্শকের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে। নাটকগুলোতে তার সহশিল্পী হিসেবে ছিলেন মেহজাবিন চৌধুরী, ফারিণ, সাবিলা নূর ও পায়েল

Previous articleশাহরুখপুত্র আরিয়ান খান মাদক মামলায় নির্দোষ
Next articleযে কারণে এক হয়েছিলেন দু’জন

Leave a Reply