সোয়েব সাদিক’র পরিচালনা মানেই ভিন্নত্বর কিছু। তার নির্মিত নাটক, বিজ্ঞাপন, ও প্রামাণ্যচিত্র সব সময় দর্শকের কাছে প্রশংসনীয় হয়েছে। তার নির্মিত এই প্রথম আদিবাসী সাঁওতালদের সংস্কৃতি- ঐতিহ্য, ইতিহাস, জাতিগত বৈষম্য, তাদের দুঃখ–দুর্দশা, প্রেম–ভালোবাসা নিয়ে চলচ্চিত্র “সুজুকি” মুক্তির অপেক্ষায় আছে।

এবার তিনি নির্মাণ করলেন ‘শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি’ এবং ‘সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস (প্রা) লি. প্রতিষ্ঠাতা কীর্তিমান ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা ইমামুল কবীর শান্ত’র জীবন, তার কর্ম এবং তার ফিলোসফি ভিত্তিক প্রামাণ্যচিত্র। যার শিরোনাম দিয়েছেন “দীপ্তপ্রাণ”।

 

সোয়েব সাদিক বলেন – “ ‘দীপ্তপ্রাণ’ গতানুগতিক ধারার প্রামাণ্যচিত্র না। দর্শক এটি যখন দেখবে মনে হবে একটি চলচ্চিত্রই দেখছে। আমি আশা করছি, এটি একটি প্রামাণ্যচিত্র নতুন ধারা বা নতুন আকার যুক্ত করল।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা ইমামুল কবীর শান্ত সারা জীবন বাঙ্গালি জাতির অর্থনৈতিক মুক্তিলাভের জন্য একটি সৃজনশীল কর্মমূখী জাতি গঠনের লড়াই করে গেছেন। এবং মৃত্যুর পরেও সব কিছু রেখে গেছেন মানবিক কল্যানে।

শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি সংগীত বিভাগের অধ্যাপক ও গণসংযোগের পরিচালক, সংগীত শিল্পী লিলি ইসলাম বলেন, ‘কীর্তিমান ও সৃজনশীল ব্যক্তিত্ব ইমামুল কবীর শান্ত স্যার কে নিয়ে কিছু নির্মাণ করার আগে আমাদের অনেক কিছু ভাবতে হয়েছে। আমরা চেয়েছি এই কাজ টা একজন সৃজনশীল নির্মাতা যার চিন্তা শক্তি প্রখর। তাই আমরা অনেক যাচাই বাছাইয়ের পর আমাদের মনে হয়েছে তরুণ নির্মাতা সোয়েব সাদিক এই কাজটি ফুটিয়ে তুলতে পারবে’।

আগামী ৩০ মে ২০২২ ইমামুল কবীর শান্ত’র মৃত্যু বার্ষিকী। ওই দিন এই প্রামাণ্যচিত্র “দীপ্তপ্রাণ” প্রদর্শিত হবে।

Previous articleআজ নজরুল জন্মজয়ন্তীতে ‘দামাল ছেলে নজরুল’
Next articleসামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে সরকার বিরোধী বেপরোয়া অপপ্রচার

Leave a Reply