ছায়ানট করোনার কারণে দুই বছর নববর্ষ পালন করতে পারেনি। কিন্তু এবার নেই করোনার প্রকোপ। তাই বাংলা নববর্ষ বরণের প্রস্তুতি নিচ্ছে সংস্কৃতি চর্চায় অনন্য এই সংগঠনটি।

রোজা থাকলেও এবার রমনার বটমূলে নববর্ষের আয়োজন করতে যাচ্ছে ছায়ানট। গণমাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন এর সভাপতি সনজীদা খাতুন।

‘নব আনন্দ জাগো’- থিমে এবার নতুন বছরকে বরণ করবে ঐতিহ্যবাহী এই সংগঠনটি। এবারের আয়োজনেও মানা হবে স্বাস্থ্যবিধি।

সম্প্রতি ‘পদ্মশ্রী’ পাওয়া সনজীদা খাতুন জানান, এর আগেও তিনবার রমজান মাসে পহেলা বৈশাখের আয়োজন করেছিল ছায়ানট।

সেই ধারাবাহিকতায় নতুন বাংলা বছরের প্রথম সূর্যোদয়ে এবারও রমনার বটমূল মূখরিত হবে
বাঙালিয়ানার সাজ, সুর আর বাণীতে। ১৯৬৭ সালে শুরু হওয়া বর্ষবরণের এই ঐতিহ্যে, করোনার আগে ছেদ পড়েছিল শুধু ১৯৭১ সালে, মুক্তিযুদ্ধের সময়।

ছায়ানটের প্রত্যাশা, করোনার কাল পেরিয়ে এই রমজানে উৎসবের ধারা নিয়ে বটমূলে বাঙালির প্রত্যাবর্তন হবে সংযমী, প্রাণবন্ত আর আনন্দঘন।

রমজানে নবর্ষবরণের আয়োজনে কোন সংশয় আছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে ছায়ানট সভাপতি বললেন, ‘এর আগেও রমজানে নববর্ষবরণ হয়েছে রমনায়। এমনকি পাকিস্তান আমলেও রমজানে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করেছি। এবার না হওয়ার কোনো কারণ দেখি না।’

বর্ষবরণের প্রস্তুতি হিসেবে এরমধ্যেই মাসব্যাপী চলছে মহড়া। ভোরের আলোয় রাগ সংগীতে শুরু হবে নববর্ষ বরণের আয়োজন।

Previous articleএফডিসিতে চলচ্চিত্র দিবসে নেই কোনো বিশেষ আয়োজন
Next articleবিঞ্জাপনে কেয়া পায়েল ও জাহিদ চৌধুরী

Leave a Reply