চলচ্চিত্রের প্রিয় তারকা দম্পতি ওমর সানী-মৌসুমী। তাদের প্রথম সন্তান ফারদিন। বাবা মায়ের অনুপ্রেরণায় ফারদিন দেশের বাইরে থেকে চলচ্চিত্র নির্মাণের উচ্চ শিক্ষাও গ্রহন করেছেন। ফারদিন এরমধ্যে বেশ কয়েকটিট নাটক-টেলিফিল্মও নির্মাণ করেছেন। যদিও চলচ্চিত্র নির্মাণ করেননি তিনি, তবে একটি ভালো গল্পের বিগ বাজেটের চলচ্চিত্র নির্মাণের ইচ্ছে রয়েছে। ফারদিনের ভাষ্যমতে, সেই সময়টা এখনো আসেনি। সময় আসলেই তিনি তার মনের মতো একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করবেন। তবে তার আগেই অনেক বড় দায়িত্ব অর্পিত হয়েছে তার উপর।

শিগগিরই কক্সবাজারে নির্মাণ কাজ শুরু হতে যাচ্ছে পাঁচ তারকা হোটেল ‘স্যান্ডি ল্যান্ড’র কাজ। এটি নির্মাণ করতে যাচ্ছে ‘এহসান গ্রুপ অব কোম্পানিজ’ ও ‘সমুদ্র সোহাগ প্রাইভেট লিমিটেড’ যৌথ উদ্যোগে। ফারদিনকে এই প্রজেক্টের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ও সিইও হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। আর পুত্রের এই প্রজেক্টে চেয়ারপারসন ও ডিরেক্টরের পদে রেখেছেন তার বাবা মাকে। অর্থাৎ ফারদিন তার মা মৌসুমীকে চেয়ারপারসন এবং বাবা ওমর সানীকে ডিরেক্টর হিসেবে রেখেছেন।

ফারদিন বলেন,‘ শিগগিরই কক্সবাজারে স্যান্ডি ল্যান্ড’র কাজ শুরু হবে। একটি পাঁচ তারকা হোটেলে যতো ধরনের সুযোগ সুবিধা থাকা প্রয়োজন তার সর্বোচ্চটুকু রাখার চেষ্টা করা হবে, যতোটা আধুনিকায়ন করা যায়, তা করা হবে। কক্সবাজারে স্যান্ডি ল্যান্ড যেন হয়ে উঠে সবার নির্ভরতার একটি জায়গা। আমাকে এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ও সিইও হিসেবে নিয়োগ দেয়ায় আমি আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ, কৃতজ্ঞতা জানাই এই প্রজেক্টের সাথে সম্পৃক্ত সবাইকে। আমার মাকে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অর্থাৎ চেয়ারপারসন হিসেবে এবং আমার বাবাকে একজন সম্মানীত ডিরেক্টর হিসেবে নিয়োগ দেয়ায় আমি ভীষণ গর্বিত। আমি পরম আনন্দ নিয়ে কাজটি করবো যেন আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে পারি। আমি স্যান্ডি ল্যান্ড’র সকল বোর্ড অব ডিরেক্টর ও ব্যবস্থাপনা পরিচালককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

চিত্রনায়ক ওমর সানী বলেন,‘ দেখতে দেখতে ফারদিন বড় হয়েগেলো। এখন তার উপর অনেক দায়িত্ব। আল্লাহর কাছে একটাই চাওয়া আল্লাহ যেন তাকে সুস্থ রাখেন, ভালো রাখেন, তার উপর অর্পিত দায়িত্ব যেন সে যথাযথভাবে পালন করতে পারে।’

প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী বলেন,‘ আমাকে চেয়ারপারসন হিসেবে রাখায় ভীষণ সম্মানীত বোধ করছি। তবে ভীষণ ভালোলাগার বিষয় হচ্ছে যে, আমার সন্তানের প্রজেক্টের চেয়ারপারসন হিসেবে নিযুক্ত হয়েছি। এটা যে কতোটা গর্বের, আনন্দের তা ভাষায় প্রকাশের নয়।

Previous articleনতুন বছরে তাদের ‘সংসার’ শুরু
Next articleহেলিকপ্টারে শ্বশুরবাড়ি গেলেন মিম

Leave a Reply