প্রথমে চেনা-জানা, তারপর বন্ধুত্ব থেকে প্রেম। সেখান থেকেই ভালোবাসার স্বীকৃতি অর্থাৎ বিয়ে। হ্যাঁ, ভালোবেসে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন সঙ্গীতশিল্পী ইলিয়াস ও নবাগত নায়িকা শাহ হুমায়রা সুবাহ। ৫ নভেম্বর বিয়ে এবং ১ ডিসেম্বর চুপিসারে ঘরোয়া আয়োজন।

এরপর ভালোবাসার নতুন সংসার সাজানোর পালা। অথচ তার আগেই জীবনের নতুন অধ্যায়ে নেমে এলো বিষাদ। ইলিয়াস-সুবাহর সুখের ঘরে বিচ্ছেদের সুর। বিয়ের দুই মাস পার না হতেই একের প্রতি অন্যের হাজার অভিযোগ। দু’জনই দাবি করলেন, তাদের মধ্যকার দ্বন্দ্বের কথা।

বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে সুবাহ লিখেন, ‘প্রতিটা মেয়েই অনেক স্বপ্ন নিয়ে গায়ে হলুদ করে। হাসিখুশিভাবে বিয়ে করে সংসার করার জন্য, বাচ্চা জন্ম দিয়ে মা হওয়ার জন্য। আমার বিয়ের পরে ইলিয়াস আর কারিনের এমন কিছু রেকর্ড আমি শুনেছি যে, রেকর্ডগুলো আমার কাছে আছে। যেটা আপনারা শুনলে অবাক হয়ে যাবেন। এইসব শুনে আমার আসলেই ওর (ইলিয়াস) সাথে থাকা সম্ভব না। তার চেয়ে মরে যাওয়া অনেক ভালো।’

কিন্তু কিছু ছেলে আছে বিয়েটাকে খেলা হিসেবে নিয়ে মেয়েদের জীবন নষ্ট করে দেয় উল্লেখ করে সুবাহ আরও লেখেন, ‘অনেক মেয়ে হাসিমুখে গরীব স্বামীর সাথে সংসার করতে পারে। কম দামি কাপড় পড়ে লবণ দিয়ে ভাত খেয়েও অনেক মেয়ে সংসার করে। কিন্তু যখন কোনো স্বামী বিশ্বাসঘাতকতা করেন, মিথ্যা কথা বলেন, অন্য মেয়ের কাছে বউয়ের নামে মিথ্যা কথা বলে সম্পর্ক রাখেন, যার চরিত্রের ঠিক থাকে না তার সাথে সংসার হয় না। হবেও না।’

তিনি বলেন, ‘মেয়েদের শরীর ভোগ করার জন্য আর টাকার জন্য বিয়ে করা একটা খেলা হয়ে গেছে কারো কাছে। তার সাথে ঘর করা সম্ভব নয়। বোকা ছিলাম, অন্ধের মতো এবারও হয়ত ভালোবেসে বিশ্বাস করে ছিলাম। তাই বিয়ে করেছিলাম। বিশ্বাস করে ঠকেছি।’

বিয়েতে ইলিয়াস কিছু দেয়নি জানিয়ে সুবাহ বলেন, ‘আমি সরল মনে ওকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলাম সংসার করার জন্য, বাচ্চা নেয়ার জন্য। কিন্তু ও আমাকে বিয়ে করেছিল আমার শরীরকে ভোগ করার জন্য এবং টাকার জন্য।’

সুবাহর ফেসবুক এক পোস্টের নিচে ইলিয়াস মন্তব্য করে লিখেন, ‘এগুলো যে মিথ্যা বানোয়াট কথাবার্তা সেটা জাতি বুঝতে পেরেছে। এতদিন চুপ ছিলাম কিন্তু এখন মনে হচ্ছে আমার কথা বলা উচিত। আমাকে যে ফাঁসিয়ে বিয়ে করেছ, সেটার যথেষ্ট প্রমাণ আছে। আমি চাইনি এসব সামনে আনতে কিন্তু এখন মনে হচ্ছে আনতে হবে।’

নতুন সংসার শুরু হতে না হতেই বেজেছে বিচ্ছেদদের সুর। যদিও তা এখনও বাস্তবে প্রতিফলিত হয়নি। তবে একে অন্যের প্রতি যে মানসিক দূরত্ব দেখা দিয়েছে, তাতে তাদের একসঙ্গে থাকার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

Previous articleবিজয়ের মাসেই বছর শেষে চমক তারা’র উষ্ণতা’
Next articleমীর সাব্বিরে মুগ্ধ ঐশী-মাত্র দু’দিন পরই চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড়াবেন তারা

Leave a Reply