দেশের একমাত্র গানের চ্যানেল ‘গান বাংলা’ চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচারিত ‘স্বাধীনতার ৫০ বছর লাল সবুজের মহোৎসব’র ১৬ দিন ব্যাপীর মহোৎসবের ঐতিহাসিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিলো গেলো ১ ডিসেম্বর, ২০২১। রাজধানীর হাতিরঝিলের এমফি থিয়েটারে এই উৎসবের শুরু হলো।

এফবিসিসির আয়োজনে বেক্সিমকো’র প্রধান পৃষ্ঠপোষকতায় এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে (অনলাইনে) উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উৎসবের সার্বিক তত্ত্ববধানে আছে ওয়ান মোর জিরো কমিউনিকেশন। বিদেশ থেকে দীর্ঘদিন পর দেশে ফেরা নন্দিত উপস্থাপক মুনমুনের উপস্থাপনার মধ্যদিয়ে এই অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, এমপি। অতিথি হিসেবে ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআই সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পর্বে দেশের কিংবদন্তী সঙ্গীত শিল্পীদের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রজন্মের শিল্পীরা দেশের গান পরিবেশন করেন। শতাধিক শিল্পী গানের পর্বে অংশ নেন। একইমঞ্চে এবারই প্রথম সিনেমার সাতজন তারকা দেশের গানের সঙ্গে পারফর্ম করেন।

এককভাবে দেশের গানে পারফর্ম করেন ফেরদৌস, পূর্ণিমা ও বিদ্যা সিনহা মিম। জুটিবদ্ধ হয়ে পারফর্ম করেন মেহজাবিন-নিরব ও ইমন-তমা মির্জা। এমন একটি আয়োজন নিয়ে ‘গান বাংলা’ চ্যানেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও কৌশিক হোসেন তাপস বলেন,‘ আমাদের এই প্রজন্মের সৌভাগ্য এই প্রজন্ম শ্রদ্ধেয় শাহীন সামাদ আপা, রফিকুল আলম ভাইয়ের সাথে স্টেজ শেয়ার করতে পেরেছি। শিল্পীদের পক্ষ থেকে আমরা ধন্যবাদ দিতে চাই এফবিসিসিআইকে, স্বাধীনতার ৫০ বছরে এমন একটি দিন উপহার দেবার জন্য যা স্মরনীয় হয়ে থাকবে। ধন্যবাদ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র, ধন্যবাদ শ্রদ্ধেয় সালমান এফ রহমান’কে, যার আন্তরিকতায় আমরা মুগ্ধ। শিল্পীদের প্রত্যেকের প্রতি বিশেষ ধন্যবাদ। তাদের আন্তরিক অংশগ্রহনেই এমন ঐতিহাসিক এই দিনের সূচনা হলো।’

বিজয়ের ৫০ বছরে এমন একটি অবিস্মরনীয় অনুষ্ঠানে পারফর্ম করা প্রসঙ্গে ফেরদৌস বলেন,‘ এমন একটি মহোৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকতে পেরে সত্যিই ভীষণ আনন্দিত। এই ধরনের অনুষ্ঠানে থাকতে পারার মধ্যেও ভীষণ ভালোলাগা কাজ করে। কারণ দর্শকের সরাসরি রেসপন্সটা পাওয়া যায়।’ পূর্ণিমা বলেন,‘ স্বাধীনতার ৫০ বছরে আয়োজিত এই অনুষ্ঠান আমাদের জন্য গর্বের।’ বিদ্যা সিনহা মিম বলেন,‘ স্বাধীনতার ৫০ বছরে বিশেষ এই আয়োজনের সাথে সম্পৃক্ত থাকতে পারাটা সত্যিই আমার জন্য অনেক ভালোলাগার।

মেহজাবিন বলেন,‘ আমি আপাতত বেশকিছুদিন যাবত নাটকে অভিনয় করছিনা। কিন্তু এর পাশাপাশি সবই করছি আমি, টিভিসির-স্টেজ শো’র কাজ করছি। তারমধ্যে এই উৎসবের শুরুর দিনে অংশ নিতে পারাটা আমার জন্য ছিলো ভীষণ আনন্দের।’ তমা মির্জা বলেন,‘ ১৬দিন ব্যাপী এমন মহোৎসবের শুরুর দিনে থাকতে পারাটা ইতিহাসের অংশ হয়ে থাকার মতো।’

Previous articleনিরাপদ সড়কের দাবি নিয়ে গান শান্ত খানের
Next articleআফসানা মিমি’র দুই সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায়

Leave a Reply