দেশের সর্বস্তরের মানুষের মাঝে ও ঘরে ঘরে তথ্যপ্রযুক্তি পৌঁছে দেওয়ার লক্ষে কম্পিউটারসহ তথ্যপ্রযুক্তিপণ্যের ব্যাপক ব্যবহার এবং এর সুফল ছড়িয়ে দিতে, বহু প্রত্যাশিত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে রাজধানীতে শুরু হতে যাচ্ছে প্রযুক্তি পণ্যের প্রদর্শনী।

আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে রাজধানীর নিউ এলিফ্যান্ট রোডস্থ দেশের সর্ব বৃহত্তম কম্পিউটার মার্কেট কম্পিউটার সিটি সেন্টারে (মাল্টিপ্ল্যান) বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজন করা হচ্ছেএই প্রযুক্তিপণ্যের বিপণন ও প্রদর্শনী।

মূলত ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে মাসব্যাপী “বিজয় উৎসব-২০২১” উৎযাপনের আয়োজন করা হয়। দেশের শীর্ষ স্থানীয় আইসিটি পণ্য আমদানীকারক ও ব্যবসায়ীরা বিশ্বের মানসম্পন্ন ব্র্যান্ডের আধুনিক প্রযুক্তিপণ্য প্রদর্শন করবেন। বিজয় উৎসব চলবে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

বিজয় উৎসব আয়োজন উপলক্ষে গতকাল (৭ নভেম্বর) কম্পিউটার সিটি সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ সময় বক্তব্য দেন কম্পিউটার সিটি সেন্টারের সভাপতি তৌফিক এহেসান, সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম ওয়াহিদুজ্জামান, কোষাধ্যক্ষ এস এম আনোয়ার আয়ুব, প্রচার সম্পাদক মীর রফিকুল ইসলাম (বিল্লু), আইটি সম্পাদক মো. রাশেদ আলী ভূইয়া, মো. মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন, মো. আহসানুল ইসলাম নওশাদ, মো. মঞ্জুরুল হাসান, মো. মুকুল হোসাইন, বিপ্লব রায়, ফিরোজ আহমেদ মুন্না, মো. আনিসুর রহমানসহ অন্যান্য মার্কেটের নেতৃবৃন্দ।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মধ্যে বৃহত্তর আইটি পণ্যের শপিং মল হিসেবে ইতোমধ্যেই পরিচিত ও জনপ্রিয় কম্পিউটার সিটি সেন্টার সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। ১ম থেকে ১০ম তলা পর্যন্ত বিশাল এরিয়া জুড়ে এ মার্কেটের ৭৫০টি প্রতিষ্ঠান তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের সর্বাধুনিক প্রযুক্তিপণ্য ও কলাকৌশল প্রদর্শন করবে। আমদানীকারকগণ ও মার্কেটের ব্যবসায়ীগণ তাদের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি পণ্যের উপর বিভিন্ন ধরনের অফার, মূল্যছাড়, উপহার সামগ্রীসহ বিভিন্ন ধরনের ইভেন্ট এর মাধ্যমে উৎযাপন করা হবে এ উৎসব।

কম্পিউটার সিটি সেন্টারের সভাপতি জনাব তৌফিক এহ্সোন বলেন, আমাদের বিজয় উৎসব উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হবে ১ ডিসেম্বর সকাল ১১টায়। এ বিজয় উৎসব হবে জাঁকজমকপূর্ণ। পুরো শপিং মলজুড়ে এ উপলক্ষে থাকবে প্রযুক্তি পণ্যের বিশেষ বেচাকেনা ও নতুন প্রযুক্তির প্রদর্শনী। সাথে নানান মূল্যছাড় ও উপহার। তরুণ প্রজন্ম থেকে শুরু করে সব মানুষের হাতে ডিজিটাল পণ্য তুলে দেওয়ার প্রয়াসেই এ আয়োজন। নির্বিঘ্নে আয়োজনে জন্য সর্বোচ্চ নিরাপত্তাসহ স্বাস্থ্যবিধির সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন কম্পিউটার সিটি সেন্টারের অন্যান্য কর্মকর্তারা। এ ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে আয়োজক কমিটির সকল সদস্য ও দেশের খ্যাতিমান আইসিটি ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

Previous articleনিজের মাকে নিয়ে গাইলেন আনন্দ খালেদ
Next articleসাইফ চন্দনের ‘কয়লা’য় বিশেষ চমক অপু!

Leave a Reply