বাংলা চলচ্চিত্রের চিত্রনায়িকা পরীমনি ঢাকা বোট ক্লাবের নির্বাহী সদস্য নাসির উদ্দিন মাহমুদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনেন। পরী নিজ বাসাতেই এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়। আর এ সময় পরীমনির পাশে তার ‘মম’ চয়নিকা চৌধুরী ছায়ার মতো ছিলেন।

চয়নিকা চৌধুরী সংবাদ সম্মেলনের সময় পরীমনির কাঁধে হাত দিয়ে বসে ছিলেন। তার চেহারায় মলিনতা ফুটে উঠেছিলো। একটু পর পর টিস্যু দিয়ে নিজের চোখের পানি মুছেছেন এই নির্মাতা। সে সময় চয়নিকাকে নিজের মা বলে অভিহিত করেন পরী। চয়নিকাও পরীকে নিজের মেয়ের মতোই স্নেহ করেন।

পরীর হয়ে তিনিও গণমাধ্যমে বিভিন্ন কথা বলেছিলেন, অভিযুক্তদের বিচারের দাবি জানিয়েছিলেন। কিন্তু এখন যখন র্যাবের হাতে মাদকসহ পরীমনি আটক হয়েছেন তখন কেন নেই তিনি? কোথায় হারালেন পরীর ‘মম’ চয়নিকা চৌধুরী ? সোশ্যাল মিডিয়ায় ফেসবুক স্ট্যাটাসে অনেকেই এমন প্রশ্ন তুলেছেন।

গণমাধ্যমের কাছে নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী বলেছেন, ‘অন্যদের মতো আমিও টেলিভিশন লাইভে ঘটনাটি দেখেছি। তবে পরীমনির বাসায় যাইনি। কারণ এটা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ব্যাপার। তারা যা ভালো বুঝবেন, সেটাই করবেন।’ প্রসঙ্গত, চয়নিকা চৌধুরী পরিচালিত প্রথম সিনেমা ‘বিশ্বসুন্দরী নায়িকা হিসাবে পরীমনি আর বিপরীতে নায়ক সিয়াম আহমেদ।

Previous articleবাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি সংবাদ সম্মেলন করবে
Next articleঅন্ধকার জগত নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিচ্ছে পরীমনি

Leave a Reply