বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে উপস্থাপনা অনেকের কাছেই ভীষণ পছন্দের পেশা হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। শুধু উপস্থাপনাতে আগ্রহী হয়ে অনেকেই দেশের প্রতিথযশা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশুনা শেষ করে নিজেদেরকে উপস্থাপনায় ব্যস্ত করে তুলছেন। ঠিক তেমনি এই সময়ে যে চারজন উপস্থাপিকা নিজেদের মেধা ও ব্যক্তিত্ব দিয়ে উপস্থাপনায় বিশেষ স্থান দখল করে নিয়েছেন এবং নিয়মিত উপস্থাপনা করে প্রশংসা কুঁড়াচ্ছেন তারা হলেন শ্রাবণ্য তৌহিদা, মৌসুমী মৌ, লাবণ্য ও নীল হুরেরজাহান অন্যতম।

শ্রাবণ্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ, মৌসুমী মৌ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের, লাবণ্য বুয়েট’র এবং নীল হুরেরজাহান ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাবেক শিক্ষার্থী ২০১৩ সালে চ্যানেল ২৪-এ ‘লাইফ স্টাইল টুয়েন্টিফোর’ দিয়ে শ্রাবণ্য’র, ২০১৬ সালে বিটিভির জাতীয় বিতর্ক দিয়ে মৌসুমী মৌ’র, ২০১৪ সালে এশিয়ান টিভি’র সিলভার স্ক্রিন দিয়ে লাবণ্য’র এবং ২০১৫ সালে বাংলা ভিশনের ‘দিন প্রতিদিন’এ উপস্থাপনার মধ্যদিয়ে নীল’র- এবং এভাবেই এই চারজনের উপস্থাপনা শুরু হয়। শ্রাবণ্য’র প্রথম অতিথি ছিলো ‘চিরকুট ব্যা-’, মৌসুমী মৌ’র রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, লাবণ্য’র সাদী মুহাম্মদ এবং নীলে’র মান্নান হীরা। প্রত্যেকেরই প্রথম কর্পোরেট শো ছিলো ঢাকাতেই। সময়ের জনপ্রিয় এই চার উপস্থাপিকা প্রত্যেকেই আবার অভিনয়ের সঙ্গেও সম্পৃক্ত আছেন। শ্রাবণ্য’র জন্মদিন ১৭ অক্টোবর, মৌসুমী মৌ’র ১২ নভেম্বর, লাবণ্য’র ১৮ অক্টোবর এবং নীল’র ৯ এপ্রিল।

লাবণ্য’র প্রিয় উপস্থাপক আনজাম মাসুদ। বাকী সবারই প্রিয় উপস্থাপক মুনমুন। তবে মৌসুমী মৌ’র আব্দুল্লাহ আবু সাইয়ীদ ও প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের উপস্থপনাও ভালোলাগে। শ্রাবণ্য ৩৮’তম বিসিএস ক্যাডারে একজন ডাক্তার মেডিসিন স্পেশালিস্ট)।

নিজের উপস্থাপনা প্রসঙ্গে শ্রাবণ্য বলেন,‘ আমি যখন ক্রিকেট নিয়ে প্রথম উপস্থাপনা শুরু করি তখন আমাকে অনেক কথা শুনতে হয়েছে। কিন্তু আমি থেমে থাকিনি। যারা একসময় সমালোচনা করতো তারাই এখন প্রশংসা করে। উপস্থাপক হিসেবে এটাই আমার প্রাপ্তি। সত্যি বলতে কী এখন একটি অনুষ্ঠানের প্রাণ হিসেবে বিবেচিত হয় উপস্থপনা। যারা টিভিতে বিশেষ অনুষ্ঠানে আসেন, তারাও এখন জানতে চান উপস্থাপক কে থাকবেন, সে ক্ষেত্রে আমার নামটি যখন বিশেষভাবে বিবেচিত হয়, তখন পুলকিত হই আমি।’

মৌসুমী বলেন,‘ উপস্থাপনা নিয়ে আমার কোন স্বপ্নই ছিলোনা। তবে ছোট্ট বেলা থেকেই মাইক্রোফোন ভীতিটা আমার ছিলোনা। কারণ আমি কথা বলতে ভালোবাসতাম। এই সময়ে এসে উপস্থাপনাই আমার ধ্যান জ্ঞান হয়ে উঠেছে। উপস্থপনায় আরো প্রত্যাশা রয়েছে আমার।’

লাবণ্য বলেন,‘ নিজের বর্তমান অবস্থান নিয়ে আমি সুন্তুষ্ট। তবে আরো বড় হবার স্বপ্নতো রয়েছেই। ইনশাআল্লাহ আমি আমার কর্ম দিয়েই সেই স্বপ্ন পূরণ করবো।’ নীল বলেন,‘ উপস্থাপনায় যা পেয়েছি তা নিয়েই আমার ভীষণ সন্তুষ্ট আমি। তবে এটা সত্যি আমার এখনো অনেকদূর যাওয়া বাকী। অনেক কিছু দেখাও বাকী।’ উল্লেখ্য শ্রাবণ্য, মৌসুমী, লাবণ্য ও নীল-প্রত্যেকেরই পাঁচেরও অধিক চ্যানেলে নিয়মিত অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করতে হচ্ছে।

Previous articleথেমে নেই ঐশী, নতুন নতুন প্লে-ব্যাক ও আধুনিক গানে ব্যস্ত
Next articleঅভিনেতা ফারহানের বিরুদ্ধে তরুণীর জিডি

Leave a Reply