এম কে প্রোডাকশন নিবেদিত নাটক ‘ব্লাক-মেইল’। এটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন পরিচালক নাসির উদ্দিন মাসুদ। নাটকটি প্রযোজনায় ছিলেন পিজুষ সেন।

নাটকের গল্পে দেখা যাবে- জীবন নামের একটি ছেলে অনেক বড় বিজনেস ম্যান তার নিজের বিয়ে করা একটি বউও আছে কিন্তু জীবন একদিন তার ফেইসবুক আইডি থেকে সানজিদা নামের একটা মেয়েকে এড পাঠায়, সানজিদাও এড করে নেয়। তারপর আস্তে আস্তে একে অপরের সাথে কথাবার্তা চলতে থাকে জীবনের বউ আছে যেনেও সানজিদা জীবনকে একটা চরম প্রেমের ফাঁদে ফেলে তারপর সানজিদার আর চাহিদার শেষ নেই জীবনের সাথে পরিচয় হওয়ার কিছু দিনের মধ্যেই সানজিদা বলে তার নাকি জন্মদিন তারপর জীবনকে বলে তার জন্মদিনে যেন জীবন তাকে একটা ডায়মন্ডের রিং উপহার করে। তারপর জীবন সানজিদার জন্মদিনে যায়, জীবন যে তার জন্মদিনে গিয়েছিল সেই জন্মদিনে গিয়ে ডায়মন্ডের রিং দিয়েছিল সেটা আবার সানজিদা বলেছিল যে রিং টা যেন জীবন নিজেই পড়িয়ে দেয় অতঃপর জীবন পরিয়ে দিয়েছিল সেটার আবার কিছু ছবি সানজিদার ভাই তুলে নিয়েছিল। তারপর আরো অনেক ধরনের ছবি তুলে নিয়েছিল অইদিন সেই পিক গুলা দিয়েই সানজিদা জীবনকে ব্লাকমেইল শুরু করে জীবনের কাছে টাকা চায় জীবন দেয় তারপর সানজিদা বলে আমাকে বিয়ে করবে কবে জীবন বলে বিয়ে মানে আমিতো বিবাহিত সেটাতো তুমি জানই। সানজিদাও নাছোড় বান্দা হাল ছারবে না। সানজিদা ঠিক জীবনের বাড়ি যেয়ে উঠে তার বউ সুমির কাছে তার জন্মদিনে তোলা ছবি গুলা দেখায়। তারপর জীবন রাতে যখন অফিস থেকে বাড়ি ফিরেন জীবনের বউ সুমি জীবনকে এসব ছবির কথা জিজ্ঞেস করলে জীবন বলে এসব মিথ্যে। এভাবে এগিয়ে চলে ব্লাক-মেইলের কাহিনি।

পরিচালক নাসির উদ্দিন মাসুদ বলেন, সাম্প্রতিক সময় উপযোগী একটি গল্প। যা আমাদের সমাজে খুঁজলে অনেক পাওয়া যাবে। নাটকটি মাধ্যমে আমরা মানুষ এসব ব্যাপারে আরো সচেতন করতে আমাদের ক্ষুদ্র প্রয়াস। আশা করি সবার ভালো লাগবে। সামনে আরো ভালো কাজ নিয়ে হাজির হচ্ছি।

নাটকটির অভিনয়ে ছিলেন- মঈন খান, ইমু সিকদার, মৌমিতা মৌ, হারুন উর রসিদ, সিয়াম নাছির, আনোয়ার, শর্মি শারমিন, জাবিনা তোফা সহ আরো অনেকেই।

Previous articleমিয়া ভাইয়ের মৃত্যুর গুজব, বেঁচে আছেন
Next article“মুক্তি দিলাম পাখি তোরে”

Leave a Reply