আত্মরক্ষা ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে মার্শাল আর্ট এর বিকল্প নেই বলেছেন মার্শাল আর্ট ওস্তাদ, ফাইট ডিরেক্টর ও প্রযোজক দেলোয়ার হোসেন দিলু। নারীদের আত্মরক্ষা ও নিজের সম্ভ্রম রক্ষা মার্শাল আর্ট, চাইনিজ কুংফু ও শতকান কারাতের বিকল্প কিছুই নেই বলে জানান তিনি।

আলাপচারিতায় তিনি বলেন, অনেকেই সুরক্ষায় মার্শাল আর্টের উপর গুরুত্ব দিচ্ছে। আমাদের দেশে নারী নির্যাতন একটি সামাজিক ব্যাধি। দেশজুড়ে এই ব্যাধিতে আক্রান্ত বিকৃত কিছু মানুষ। দেশে নারী নির্যাতন বেড়েছে। সরকার আইন করেও এ থেকে নারীদের পরিত্রাণ ও নিরাপত্তা দিতে পারছেন না। তাই এ থেকে পরিত্রাণ পেতে নারীদের আত্মরক্ষামূলক কৌশল শিখতে হবে।

নিজেদের সম্ভ্রম রক্ষা করতে সম্প্রতি অনেক নারী আত্মরক্ষার কৌশল শেখার দিকে ঝুঁকেছেন। শিখছেন মার্শাল আর্ট, তায়কোয়ান্দো, চাইনিজ কুংফু ও শতকান কারাতে এবং উশুর মতো আত্মরক্ষার কৌশল।

ধর্ষণ প্রতিরোধে নারীরা আসছেন আত্মরক্ষামূলক চাইনিজ মার্শাল আর্টসহ অন্য কৌশল শিখতে। উশুতে হাত ও পা একসঙ্গে ব্যবহার করা যায়। এসব শিখতে অনেক মা তাদের মেয়েদের নিয়ে আসছেন। যাতে সমাজিক এই ব্যাধি থেকে মেয়েরা নিজেদের রক্ষা করতে পারে।

আমার কয়েকটি মার্শাল আর্টের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র রয়েছে। মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়াম, রমনা পার্ক, মহাকালী, উত্তরা, টঙ্গী কলেজ গেট ,চেরাগ আলী, ভৈরব স্টেডিয়াম ও কিশোরগঞ্জ মানবাধিকার সংস্থা বালিকা কেন্দ্রে গুলোতে ভিড় জমাচ্ছেন অভিভাবকরা। আত্মরক্ষার জন্য প্রতিরোধমূলক কৌশল শেখাচ্ছেন মেয়েদের। যাতে মেয়েরা উত্ত্যক্তকারীদের রুখে দিতে এবং নিজেদের রক্ষা করতে পারে। আমার মতে, দেশের সব মেয়ের আত্মরক্ষার কৌশল শেখা উচিত।

তিনি আরও বলেন, মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে ও আত্মরক্ষায় মার্শাল আর্ট এর বিকল্প নেই। আপনাদের সকলের শিশু সন্তানকে মার্শাল আর্ট শিখতে উৎসাহিত করুন। এতে দেহ ও মন সব ভালো থাকবে।

উল্লেখ, ওস্তাদ দেলোয়ার হোসেন দিলু বাংলাদেশ ড্রাগন মার্শাল আর্ট সেন্টার এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান প্রশিক্ষক, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে স্বর্ণ পদকপ্রাপ্ত। ইন্টারন্যাশনাল ওপেন কারাতে চ্যাম্পিয়নশীপ এশিয়া কাপে ২০১৮ তে রানার আপ হয়েছেলিনে তিনি।

Leave a Reply