দর্শকনন্দিত ঢাকাই সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেত্রী সুজাতা। মূল নাম ছিল তন্দ্রা মজুমদার, এখন লোকে ‘সুজাতা আজিম’ নামেই চেনে। রূপালি পর্দার প্রথম ‘রূপবান’ তিনি। ১৯৬৫ সালের রূপবান চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি পরিচিত। আছে আরও অনেক স্মরণীয় চরিত্র। গত নভেম্বরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতাল ভর্তি হন এ অভিনেত্রী। তবে এখন আগের চেয়ে ভালো আছেন তিনি। ডাক্তারের পরামর্শে বিশ্রামে আছেন। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের এ অভিনেত্রীর কোন অতৃপ্তি কিংবা আক্ষেপ নেই। তিনি পরিপূর্ণ। অভিনয়ে বিশেষ অবদানের জন্য চলতি বছর একুশে পদকের জন্য মনোনীত হয়েছেন এই অভিনেত্রী। অনেক দিন অভিনয় থেকে দূরে থাকলেও বসে নেই সুজাতা। এরই মধ্যে একটি তুর্কিজ ছবির ডাবিং করেছেন। এছাড়া লেখালেখি নিয়ে ব্যস্ততা। ২০১৯ সাল থেকে লেখালেখিতে জড়িত। বইমেলায় প্রতি বছরই তার বই বের হয়। এবারও তিনটি বই প্রকাশিত হবে। একটি আত্মজীবনী অন্য দুটি ‘রূপবানের কথা’ ও ‘মেঘলা আকাশ’ নামে উপন্যাস।

আপনি যখন চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেছেন সেই সময়টাকে স্বর্ণালী যুগ বলা হয়। এখনও সিনেমা নির্মাণ হচ্ছে। কিন্তু সে সময়টার মত নির্মাণ হচ্ছে না। বিষয়টিকে কিভাবে দেখেন? উত্তরে তিনি বলেন, এখনকার চিত্রনাট্যে অনেক দুর্বল। গল্প ভালো হলে সব ভালো হবে। এখন অভিনয় শেখানোর মানুষ খুব কম। আমাদের সময় অনেক শেখানোর মানুষ ছিল। অনেক চ্যানেলের কারণে চলচ্চিত্রের একটু অসুবিধা হয়েছে। তবে আমাদের গল্পের দিকে আরও বেশি মনোযোগী হতে হবে। দুর্বল গল্প হলে দর্শক সিনেমা দেখবে না। দর্শককে সিনেমা মুখি করতে হলে গল্প অনেক গুরুত্বপূর্ণ। গল্প ভালো হলে শিল্পীরাও ভালো অভিনয় করে চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে পারে। গল্পের দুর্বলতার কারণে একটু পিছিয়ে আছি। গল্পে জোর নজর দিতে হবে।

Previous articleঅশ্লীলতার কারণেই চলচ্চিত্র থেকে মন উঠে যায়: শাহীন আলম
Next articleঝিলিকের ‘তোমার নিঃশ্বাসে’

Leave a Reply