শিশুশিল্পী হিসেবে বড় পর্দায় পা রাখেন অভিনেত্রী প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। দীর্ঘ বিরতির পর তিনি এখন নায়িকা। গত বছরের শেষ দিকে দীঘি ৬টি সিনেমায় অভিনয় করবেন সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়। এ নিয়ে সেসময় উচ্ছ্বসিত ছিলেন তিনি। কিন্তু হঠাৎ করেই ৫টি সিনেমা থেকে বাদ পরেন নবাগত এই নায়িকা। এরপরই  সংবাদমাধ্যমে এ প্রসঙ্গে মন্তব্য করেন দীঘি। তার মন্তব্য চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট অনেককেই বিস্মিত করেছে।

দীঘি সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, মূলত একটি সিনেমা নিয়ে শাপলা মিডিয়ার সঙ্গে আমার চুক্তি হয়েছে। বাকিগুলো মুখে মুখে। বাদ দিতে হলে তো আগে নিতে হবে। না নিয়ে কীভাবে বাদ দেয়? বাকি সিনেমাগুলোর ব্যাপারে কোনো চুক্তি হয়নি। শুনেছি সিনেমাগুলোই হবে না, তাহলে বাদের কথা কেনো আসছে?

অথচ গত বছরের শেষ দিকে দীঘি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ৫টি সিনেমা চূড়ান্তের কথা বলেছিলেন। সে সময় দীঘি বলেছিলেন, দুইটি সিনেমা আগেই চূড়ান্ত ছিল। এরপর আরো তিনটি সিনেমা চূড়ান্ত হয়েছে। একসঙ্গে ৫ সিনেমায় সুযোগ পাবো আগে ভাবিনি। এখন সিনেমাগুলোর জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছি। সবগুলোতে ভালো করার চেষ্টা করবো।

উচ্ছ্বসিত হয়ে এমন মন্তব্যের পর এখন দীঘি বলছেন মাত্র একটি সিনেমায় কাজের কথা। ফলে দীঘির কথায় অনেকেই বিস্মিত হয়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট একজন বলেন, সিনেমা থেকে অনেক শিল্পীই বাদ পরেন- এটা নতুন কিছু না। পরিচালক-প্রযোজক চাইলে বাদ দিতে পারেন। কিন্তু এ নিয়ে মিথ্যাচার বা ঘুড়িয়ে-পেঁচিয়ে বলার কিছু নেই!

বর্তমানে দীঘির হাতে একটি সিনেমার কাজ রয়েছে। এর আগে শাপলা মিডিয়া প্রযোজিত ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ সিনেমার কাজ শেষে করেন তিনি। এই সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে তার পথচলা শুরু হয়। সিনেমাটি সেন্সর বোর্ডে আটকে আছে। অন্যদিকে ‘তুমি আছ-তুমি নেই’ সিনেমার কাজ শেষ করেছেন দীঘি।

Previous articleসিলভার বাটন পেলেন আপন
Next articleদ্বিতীয় দিনেও ব্যাপক সাড়া ফেলেছে ‘মোল্লার মুড়ি উৎসব’

Leave a Reply