বিজয় দিবস উপলক্ষে গত ১৬ ডিসেম্বর অ্যাপসে অর্ধেক ছবি মুক্তি পায় শাকিব খান, মাহিয়া মাহি ও অর্চিতা স্পর্শিয়া অভিনীত ‘নবাব এলএলবি’ সিনেমাটি। বাকি অর্ধেক মুক্তি পায় পহেলা জানুয়ারি। ছবিটি মুক্তির পরই সমালোচনার স্বীকার হয়। ছবি সংশ্লিষ্টরা ‘নবাব এলএলবি’ সিনেমা হিসেবে উল্লেখ করলেও ছবিটি সেন্সর সার্টিফিকেট নেয়নি। ছবিতে অশ্লীলতা প্রদর্শন এবং পুলিশকে হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগে কারাগারে রয়েছেন পরিচালক অনন্য মামুন ও অভিনেতা শাহীন মৃধা। কিন্তু অশ্লীল দৃশ্যে অংশগ্রহণের কারণে স্পর্শ করা হয়নি অর্চিতা স্পর্শিয়াকে। অনন্য মামুনের গ্রেপ্তার হওয়া ও কারাগারে থাকা নিয়ে পরিচালক সমিতির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অনন্য মামুনকে সহযোগিতা করবেন না তারা। এছাড়া পরিচালক সমিতি সম্প্রতি নির্বাহী পরিষদের এক আলোচনায় অনন্য মামুনকে পরিচালক সমিতির সদস্য হিসেবে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করার একটি প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। সম্ভবত ১৬ জানুয়ারি পরিচালক সমিতির সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে প্রস্তাবটি পাস করিয়ে নেওয়া হবে।

পরিচালক সমিতির একজন মুখপাত্র বলেছেন, শুধু পরিচালক সমিতি নয়, অনন্য মামুনকে নিষিদ্ধ করার জন্য প্রযোজক পরিবেশক সমিতিকেও অনুরোধ করা হবে। তারাও এ ব্যাপারে উদ্যোগ নেবে বলে পরিচালক সমিতি মনে করে। নবাব এলএলবি ছবির শাহীন মৃধা ও অর্চিতা স্পর্শিয়ার কথোপকথনের সেই আলোচিত দৃশ্যটি এখনও বিভিন্ন এনড্রয়েড হ্যান্ডসেটে ঘুরাফিরা করছে। এর আগে অনন্য মামুন মানবপাচারের অভিযোগে মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর পরিচালক সমিতি তাকে নিষিদ্ধ করে। সেই সময় তিনি পরিচালক সমিতিতে একটি মুচলেকা দেন। মুচলেকায় তিনি আর কোনো অপরাধ করলে, যা পরিচালক সমিতির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে, তাহলে পরিচালক সমিতি তাকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করলেও তার কোনো আপত্তি থাকবে না।

Previous articleআমান রেজার ‘বি ফর আই ডাই’
Next articleমৃত্যুপুরীতে ছিলেন বুবলী!

Leave a Reply