বিয়ের এক বছর নয় মাস পর ভেঙে গেল ছোটপর্দার অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার সংসার। বিয়ের পরই গুঞ্জন ছিল শবনম ফারিয়া ও হারুন অর রশীদ অপুর বিবাহ জীবন ভালো যাচ্ছে না। মিডিয়া পাড়ার অলিগলি এ নিয়ে কানাকানি চলে। সে সময় ফারিয়া জানান তারা ভালো আছেন। কিন্তু ভালো থাকাটা অনেকেই সহ্য করতে না পেরে এ রকম গুজব ছড়াচ্ছেন। তবে অবশেষে সেই গুঞ্জনই সত্যি হয়েছে। গত ২৭ নভেম্বর বিচ্ছেদ পত্রে সই করেন দুজনে।

কারণ হিসেবে শবনম ফারিয়া জানান, উল্লেখযোগ্য কোনও কারণ নেই এই বিচ্ছেদের পেছনে। ফলে একে অপরের প্রতি কোনও অভিযোগও নেই। দুজনেই চেয়েছেন নিজেদের মতো ভালো থাকতে। এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে ফারিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়। শবনম ফারিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা ভালোবেসে বিয়ে করেছি। অনেক প্ল্যান ছিল এই সংসার ঘিরে। কিন্তু নানাবিধ কারণে সেগুলো বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। ফলে আমরা দুজনে মিলেই দলছুট হওয়ার মতো কঠিন সিদ্ধান্তটি নিয়েছি।

গত বছর ১ ফেব্রুয়ারি জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া ও বেসরকারি চাকুরীজীবী হারুন অর রশীদ অপু। ২০১৫ সালে ফেসবুকের মাধ্যমে ফারিয়া-অপুর ‘পরিচয়’ হয়। দুজনের ভালো বন্ধুত্ব তৈরি হয়। তিন বছর পর বন্ধুত্বের সীমানা পেরিয়ে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে আংটি বদল হয় তাদের।

Previous articleবিলুপ্তির পথে সিনেমা ব্যানার পেইন্টিং
Next article‘বিবাহে বিচ্ছেদ হয়, ভালবাসার বিচ্ছেদ নেই’

Leave a Reply