একাত্তরের বীরাঙ্গনাদের নিয়ে উল্লেখ করার মতো তেমন কোনো চলচ্চিত্র বা নির্মাণ নেই বললেই চলে। কোথাও দেখা যায়নি মুক্তিযুদ্ধের পর কেমন কেটেছে বীরাঙ্গনাদের জীবন। মুক্তিযোদ্ধা বীরাঙ্গনাদের নিয়ে ‘জননী জন্মভূমি’ শিরোনামের একটি আর্ট চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন নির্মাতা নাদিয়া আফরিন। সম্প্রতি গাজীপুরের বিভিন্ন মনোরম লোকেশনে চলচ্চিত্রটির দৃশ্যধারণ শেষ হয়েছে। এতে প্রতিটি চরিত্রই গুরুত্ব সহকারে ফুটে উঠবে বলে জানান নির্মাতা। তেমনই একটি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রীয় একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী তনামি হক। এতে আরও অভিনয় করেছেন বাংলা চলচ্চিত্রর আলোচিত অভিনেত্রী আনোয়ারা,  মাহমুদুল হাসান মিঠু (বড়দা মিঠু), ফারজানা ছবি, পীরজাদা হারুন, শেলী আহসান সহ আরও অনেকে। আর্ট চলচ্চিত্রটি ফ্যাস্টিভ্যালের জন্য নির্মিত হয়েছে। এছাড়াও টেলিভিশনে প্রিমিয়ার হবে। তনামি হক অভিনেত্রী আনোয়ারার ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তিনি এর আগে মালেক আফসারী পরিচালিত ‘পাসওয়ার্ড’ ও জাকির হোসের রাজু পরিচালিত ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ সিনেমাতে অভিনয় করেছেন। ছবি দুটিতে সহশিল্পী ছিলেন শাকিব খান ও শবনাম বুবলী।

‘জননী জন্মভূমি’ প্রসঙ্গে তনামি হক বলেন, ‘ক্যারিয়ারের তৃতীয় চলচ্চিত্রে অভিনয় করলাম। এখানে আনোয়ারা ম্যাডামের ছোট বেলার চরিত্রে অভিনয় করেছি। চরিত্রের নাম রোকেয়া। বীরাঙ্গনাদের গল্প নিয়ে ছবিটি। এ ধরনের গল্পে কাজ করতে পেরে বেশ লাগছে। ছোটবেলা থেকে আনোয়ারা ম্যাডামের অনেক বড় ভক্ত। তাঁর অনেক ছবি দেখেছি। কাজ করার আগেও তাঁর বেশ কিছু ছবি দেখে শুটিংয়ে গিয়েছি। তাঁর মতো গুণী অভিনেত্রীর সাথে কাজ করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি। তিনি ও বড়দা মিঠু অভিনয়ে অনেক সহযোগিতা করেছেন। শোবিজের শুরুতে ভিন্ন ধারার একটি গল্পে কাজ করতে পেরে ভালো লাগছে। কাজের সংখ্যা না বাড়িয়ে এ রকম ভালো কিছু কাজ করতে চাই। আনোয়ারা ম্যাডামের সাথে আর অভিনয়ের সুযোগ হবে কিনা জানি না তবে কাছ থেকে তাঁর অভিনয় দেখে মুগ্ধ। ধন্যবাদ নির্মাতা নাদিয়া আপুকে ভালো একটি কাজে যুক্ত করার জন্য। ‘জননী জন্মভূমি’ নিয়ে আমি খুবই আশাবাদী।’

Previous articleফরচুন বরিশালের শুভেচ্ছাদূত হলেন জায়েদ খান
Next articleপ্লেব্যাকে ব্যস্ত হচ্ছেন দোলা

Leave a Reply