নতুন স্বাভাবিকে সিনেমা হল খুললেও প্রেক্ষাগৃহে নেই নতুন ছবি। গত ১৬ অক্টোবর স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেশের সিনেমা হল। প্রেক্ষাগৃহ খোলার প্রথম দিনে মুক্তি পায় মানহীন একটি ছবি। ভালো ছবি না থাকায় বলাকা, মধুমিতা, জোনাকী সহ বেশ কয়েকটি সিনেমা হল এখনও বন্ধ রয়েছে। তাদের ভাষ্য ভালো ছবি মুক্তি না পেলে সিনেমা হল খুলবে না। মধুমিত হলের কর্ণধার ইফতেখার নওশাদ মনে করেন, সিনেমা হল খোলা উচিত ছিল শাকিব খানের নতুন ছবি দিয়ে। মানহীন ছবি দিয়ে সিনেমা হলের দর্শক বাড়বে না বরং কমবে। হল বাঁচাতে শাকিব খানের ছবি দরকার।

পুরোনো ছবি চালিয়ে দর্শক টানতে পারছে না সিনেমা হলগুলো। বছরে অন্তত ১০টি ভারতীয় ছবি যেন বাংলাদেশে মুক্তি পায়, তথ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে এমন আবেদন জানিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি। এমনকি ভারতীয় বাংলা ও হিন্দি ভাষার ছবি আনতে আমদানির শর্ত সহজ করারও দাবি জানিয়েছে তারা। তাই প্রদর্শক সমিতি চাচ্ছে বিদেশি (মূলত ভারতীয়) ছবি আমদানি করতে। কিন্তু এর আগে সিনেমা হলে ভারতীয় ছবি দর্শক টানতে ব্যর্থ হয়। তবে বিগত বছরগুলোতে আমদানি করা ভারতীয় ছবির দিকে তাকালে দেখা যায়, সিংহভাগ ছবিই বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়েছে। ২০১০ সালের পরে খোকাবাবু, খোকাবাবু ৪২০, অভিমান, বেপরোয়া, বেলা শেষে, ওয়ান, তোমাকে চাই, হরিপদ ব্যান্ডওয়ালা, ভিলেন, জানবাজ, ভাইজান এলো রে, চালবাজ, কেলোর কীর্তি, পাসওয়ার্ড সহ প্রায় ২০টি ভারতীয় ছবি আমদানি করে বাংলাদেশে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। বেশির ভাগ ছবিই প্রেক্ষাগৃহে লাভের মুখ দেখেনি।

Previous articleবিশেষ নাটক ‘গেম অফ লাইফ’
Next articleপরিচালনায় আসছেন শ্রীলেখা

Leave a Reply