পুরান ঢাকার মেয়ে মেঘলা। পুরো নাম ঊষা আক্তার মেঘলা। তার ডাক নাম মেঘলা। স্মিতহাস্য সুন্দরী এই গ্ল্যামারাস তরুণী পড়াশোনা করছেন ঢাকার একটি কলেজে। তবে মেঘলার ছাত্রী পরিচয়ের বাইরে বড় পরিচয় হলো – তিনি এখন দেশীয় শোবিজের উঠতি মডেল ও অভিনেত্রী। বেশ কিছু মিউজিক ভিডিও এবং টিভি নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বিনোদনের বৃহৎ মাধ্যম চলচ্চিত্রেও অভিনয় করছেন। সম্প্রতি মেঘলার সঙ্গে কথা বলেছেন এই প্রতিবেদক। তিনি বলেছেন তার শোবিজে আসার পেছনের গল্প এবং শোবিজ ক্যারিয়ারের চলমান কাজ আর ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা।

মেঘলা জানান, শিশু শিল্পী হিসেবে তার শোবিজে আগমন। একদম শিশু বয়েস থেকেই তিনি নাচ শিখেছেন। মূলত নাচ দিয়েই তার সাংস্কৃতিক অঙ্গনে পথচলার শুরু। নাচের পাশাপশি গানেও তিনি পারদর্শী বলে জানান। মেঘলা বলেন, নাচ আর গান করতে করতেই মিডিয়ায় কাজ করার ইচ্ছে জাগে। সুযোগও হয় নাচের মাধ্যমেই। বলা যায়, নাচকে ভালোবাসার কারণেই অভিনয়ের প্রতি আমার মনোযোগ তৈরি হয়। তবে মিডিয়ায় প্রথম কাজ শিশু মডেল হিসেবে মিউজিক ভিডিওতে। মাত্র সাত বছর বয়েসে সঙ্গীতার একটি মিউজিক ভিডিওতে মডেল হই। সেটি ছিল বাচ্চাদের গানের মিউজিক ভিডিও। মেঘলা জানান, ওই সময়ে তিনি শিশু মডেল হিসেবে টিপু সুলতান, বন্যা, রাত্রি, নিশি, আকাশ এসব শিল্পীর গানের মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেন। তিনি শিশু মডেল হিসেবে ১৭/১৮ টি মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়েছেন বলে জানান। একই সময়ে তিনি ১৬/১৭ টি নাটকে শিশু শিল্পীর চরিত্রে অভিনয় করেন।

মেঘলা জানান, মিউজিক ভিডিওতে মডেল হওয়ার পর তিনি নাটকে অভিনয় করেন। কিন্তু এর আগে কয়েক বছর পড়াশোনার চাপে মিডিয়া থেকে দূরে ছিলেন। তার অভিনীত প্রথম টিভি নাটক হলো ‘সৎ মায়ের সংসার’। সেটির পরিচালক ছিলেন আমজাদ হোসেন। মেঘলা এই নাটকটি প্রসঙ্গে বলেন, সেটি কিশোরী বয়সের নাটক ছিল। বড়দের কাহিনী নির্ভর ওই নাটকে আমি কিশোরী নায়িকা চরিত্রে অভিনয় করেছিলাম।

মেঘলা জানান, টানা চার বছর তিনি মিডিয়ায় কোন কাজ করেননি শুধুমাত্র পড়াশোনার জন্যেই। তবে এই সময়টাতে তিনি নিয়মিত নাচের চর্চা করেছেন। তেমনি নিজেকে তৈরিও করেছেন নাটক এবং চলচ্চিত্রে নায়িকা চরিত্রে অভিনয়ের জন্যে। পরিণত বয়েসে তার অভিনীত নাটকগুলোর নাম হলো – জামাই বিরোধ, পিরিতের মাতব্বরি, প্রেম বাস্তবায়ন কমিটি, রসের হাড়ি, চোরের দশ দিন, অনুভূতি। সম্প্রতি তিনি অভিনয় করেছেন ‘ভক্ত’ নামের একটি টিভি সিরিয়ালে। এটি চ্যানেল আইতে প্রচার হবে বলে তিনি জানান। এছাড়া বর্তমানে তিনি অভিনয় করছেন মাঈনুল হাসান খোকন পরিচালিত আলোচিত মেগা সিরিয়াল ‘দাদো’তে।

চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে মেঘলা বলেন, চলচ্চিত্র হলো বিনোদনের বৃহৎ মাধ্যম। এই মাধ্যমে কাজ করতে পারাটা একজন শিল্পীর বড় সার্থকতা। নাটকে অভিনয় করার সুবাদে আমি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের বেশ কিছু প্রস্তাব পাই। সেই সূত্রেই বদিউল আলম খোকন পরিচালিত ‘আগুন’ ছবিতে অভিনয় করি। আরও কিছু ছবিতে অভিনয়ের কথা চলছে। ব্যাটে বলে হয়ে গেলে খুব শীঘ্রি হয়তো আমাকে নতুন আরও কিছু ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যাবে।

তার কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল – নাটক এবং চলচ্চিত্রের মধ্যে অভিনেত্রী হিসেবে তিনি কোন মাধ্যমকে প্রাধান্য দিতে চান? মেঘলা বলেন, আমার টার্গেট অভিনয় করার। আমি অভিনয়কেই তাই প্রাধান্য দিতে চাই। এখানে অভিনয় মাধ্যম কোন ফ্যাক্টর নয়, অভিনয়টাই মুখ্য। ভালো অভিনয়ের সুযোগ যেখানে পাবো, সেখানেই আমি অভিনয় করবো – হোক সেটি নাটক বা চলচ্চিত্র। কাহিনী এবং চরিত্র পছন্দ হলে দুই মাধ্যমেই আমি সমান তালে অভিনয় করবো। কারণ, আমার স্বপ্ন হলো ভালো একজন অভিনেত্রী হওয়ার। অভিনয় দিয়ে দর্শকদের মন জয় করে আমি অভিনেত্রী হিসেবে আমার প্রতিষ্ঠা চাই। আমি অভিনয়কে প্রাধান্য দিয়ে নাটক – চলচ্চিত্র দুই মাধ্যমকেই প্রাধান্য দিতে চাই। দুটো মাধ্যমকেই আমার অভিনয় প্রতিভা প্রকাশের মাধ্যম হিসেবে বেছে নিতে চাই।

কথায় কথায় মেঘলা জানান, অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বিজ্ঞাপনচিত্রের মডেল হিসেবেও পরিচিতি চান। এর আগে তিনি একটি শপিং সেন্টারের বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়েছিলেন বলে জানান। তার ইচ্ছে এই মাধ্যমেও অভিনয়ের মতো নিয়মিত কাজ করতে চান। মেঘলা বলেন, সম্প্রতি ২/৩ টি বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেলিংয়ের বিষয়ে কথা হয়েছে। সব কিছু ফাইনাল হলে হয়তো খুব শীঘ্রি মেঘলাকে আবার মডেল হিসেবে দেখা যাবে বলে জানান।

মেঘলা জানান, অনলাইন বিনোদন মাধ্যম তথা ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম মাধ্যমেও তিনি কাজ করতে চান। ওয়েব সিরিজ, ওয়েব ফিল্ম এবং ওভিসিতেও নিজের মেধা – প্রতিভার প্রকাশ ঘটাতে চান। ইতিমধ্যে তিনি ওয়েব সিরিজে অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন। খুব শীঘ্রিই বিনোদনের ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে তাকে দেখা যাবে বলে জানান।

পাঁচ ফুট ৫ ইঞ্চি উচ্চতার দীর্ঘাঙ্গী এই সুন্দরী গ্ল্যামারাস তরুণীর স্বপ্ন – দেশীয় শোবিজে সাফল্যের আকাশ ছোঁয়া তারকা হওয়ার। মেঘলা জানান, ধীরে ধীরে নিজেকে গড়ে নিচ্ছেন শোবিজে আগামীর তারকা হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার লক্ষ্যে। তিনি বলেন, অভিনয়টা আমার এখন ভীষণ রকমের নেশা। এটা আমি কিছুতেই ছাড়তে পারবো না। তবে আমি প্ল্যান করেছি অভিনয়ের পাশাপশি অবশ্যই পড়াশুনাটা চালিয়ে নেওয়ার। আপাতত এই দুটোই আমার জীবনের লক্ষ্য। অভিনেত্রী হিসেবে আমি যেনো দর্শকদের মন জয় করতে পারি – সবার কাছে আমার এই দোয়া চাওয়ার আছে। সবাই আমার জন্যে দোয়া করবেন।

Previous articleবৈশাখীর নতুন ধারাবাহিক ‘জমিদার বাড়ি’
Next articleপারিবারিক দ্বন্দ্বে ‘বউ শাশুড়ি’

Leave a Reply