ছবি: এম এ এইচ সাগর

এম এ এইচ সাগর: অভিনেত্রী আইনুন পুতুল মঞ্চ নাটক, বিজ্ঞাপনচিত্র ও টিভি নাটকে অভিনয় করছেন সমানতালে। মিডিয়াতে কাজের অনুপ্রেরণা বাবাকে দেখে। ছাত্র থাকা অবস্থায় তার বাবা থিয়েটার করতেন। এক সময়ে থিয়েটার ছেড়ে দিতে হয়। যখন বড় হয়ে জানতে পারি নিজের মধ্যে আগ্রহ তৈরি হয় থিয়েটারে কাজ করার। আমার বড় ভাই থিয়েটারে কাজ করতে অনুপ্রেরণা দেয়। তৃতীয় শ্রেণিতে থাকাকালীন থিয়েটারের সাথে যুক্ত। এভাবেই শুরুর গল্প বললেন পুতুল। সম্প্রতি পুতুল শেষ করেছেন অভিনেতা ও নির্মাতা শামীম জামান পরিচালিত ‘বিনা সুতার মালা’ শিরোনামের করোনা সচেতনার একটি ধারাবাহিক নাটক। এছাড়াও শেষ করেছেন কয়েকটি ধারাবাহিক, একক নাটক, টিভিসি ও ওভিসির কাজ।

‘বিনা সুতার মালা’ প্রসঙ্গে বলেন, ‘নাটকে পাঁচটি পরিবারকে দেখানো হয়েছে। আমি গার্মেন্টেসে চাকরি করি। সব কিছু বন্ধ হয়ে গেলে করোনার জন্য গ্রামের বাড়ি চলে যাই। করোনার কারণে আমার  স্বামী চাকরি হারান। যার কারণে দুজনেই গ্রামে চলে আসি। গ্রামে আসার পর কেউর কাছে টাকা নেই। ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইন, মুখে মাস্ক নিয়মনীতি এগুলো কিছুই মানতেছি না যার কারনে একটা সময় দেখা যায় আমার মধ্যে করোনার লক্ষণ দেখা দিয়েছে। এভাবেই নাটকের গল্পটি এগিয়ে যাবে।’

করোনার এ সময় অভিনয়ে চ্যালেঞ্জ অনুভব করেন? এখন ততোটা চ্যালেঞ্জিং মনে হয় না যতটা শুরুর দিকে হয়েছিলো। প্রথম যখন করোনার মধ্যে কাজ শুরু করি তখন সবাই নিয়মনীতি মেনে চলতাম। প্রয়োজন ছাড়া কেউর সাথে কথা বলতাম না। এখন আর সে রকম হয় না। ছবির কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘খন্দকার সুমন পরিচালিত নতুন ছবি ‘সাঁতাও’ করোনার জন্য আটকে আছে। সব কাজ শেষ এডিটিং ও কালার বাকি। এ বছর আর মুক্তি দেওয়া সম্ভব নয়। হয়ত ২০২১ সালে এটি আলোর মুখ দেখবে।’

কোন মাধ্যমে কাজ করতে ভালো লাগে চলচ্চিত্র নাকি নাটকে? অভিনয় করতেই ভালো লাগে সেটা চলচ্চিত্র হোক কিংবা নাটক বা মঞ্চ। যে কোন মাধ্যমে অভিনয় করতেই ভালো লাগে। তাছাড়া যে কোন চরিত্রে কাজ করতে ভালো লাগে হোক সেটা ইতিবাচক কিংবা নেতিবাচক। প্রিয় অভিনেতা হুমায়ুন ফরিদী, অভিনেত্রী সুবর্না মোস্তফা ও জয়া আহসান। -বললেন আইনুন পুতুল।

Previous articleশিরিন শিলার সঙ্গে আংটি বদল করলেন জাহিদ হাসান
Next article‘সোলমেট’র অপেক্ষায় সাঞ্জু-বিপাশা

Leave a Reply