ব্যতিক্রমী নাম, পোস্টার, টিজার, ট্রেলার এবং গান রিলিজ দেবার পরেও বিভিন্ন কারনে মুক্তির তারিখ বেশ কয়েকবার পিছিয়ে দেবার পর এবার নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বলের প্রথম সিনেমা ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে আগামী ২৩শে অক্টোবর। আমাদের দেশের তথাকথিত বানিজ্যিক সিনেমার গতানুগতিক ধারার বাইরে এসে একেবারেই ভিন্নধর্মী ট্রেলারটি রিলিজ দেবার পর থেকেই দর্শকদের মনে তৈরি হয়েছে আগ্রহ এবং নানা রকম জিজ্ঞাসা। সিনেমার গল্পকে ঘিরে সিনেমাপ্রমীদের মধ্যে আগে থেকেই যে আগ্রহ ছিলো সেটি ট্রেলার প্রকাশের পর আরও বেশি আলোচনায় স্থান করে নিয়েছিলো। ট্রেলারের নানা দৃশ্য ও সংলাপের বেড়াজাল নতুন করে ভাবিয়ে তুলেছে দর্শকদের। সিনেমাটি কী থ্রিলার নাকি সায়েন্স ফিকশন না রোমান্টিক? এই প্রশ্নের উত্তর আপাতত না জানা গেলেও কিছুদিন আগেই নির্মাতা উজ্জ্বল জানিয়েছিলেন-এটা কাঁচের যুগের সিনেমা নয়। এটি একটি অন্যরকম অনুভূতির সিনেমা। ট্রেলার দেখে যতোটুকু বোঝা যায় সিনেমাটির গল্পের মূল চরিত্র অয়ন ও নীরা। এই দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন নবাগত ইমতিয়াজ বর্ষণ ও শার্লিন ফারজানা। এছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইলোরা গওহর, ইনামুল হক, মানস বন্দোপাধ্যায়, ফারিহা শামস সেওতি সহ আরো অনেকে।

এর আগে ‘জাগো’ সিনেমার একটি চরিত্রে অভিনয় করলেও ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শার্লিন ফারজানার মতে ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ সিনেমাটিই অভিনেত্রী হিসেবে তার প্রথম সিনেমা। নীরা চরিত্রটি সেলুলয়েড এর পর্দায় ফুটিয়ে তোলার জন্য নিজের সেরাটাই দিয়েছেন এই অভিনেত্রী। ঢাকাই সিনেমার নায়িকা হিসেবে ভিন্নধর্মী এক নতুন চরিত্র নিয়েই হাজির হচ্ছেন আগামী ২৩ তারিখ। ট্রেলারে যতোটুকু ভিন্নতা এবং ব্যতিক্রমী নীরাকে দেখা গেছে পুরো সিনেমায় তার বাত্যয় ঘটবে না বলেই আশা রাখা যায়। ভবিষ্যতে সুন্দর গল্পে অভিনয়ের প্রস্তাব পেলে নিয়মিত চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন জানিয়েছেন শার্লিন ফারজানা।

অন্যদিকে ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ সিনেমার আগে ওয়াহিদ তারেকের ‘আলাগা নোঙর’ এন রাশেদ চৌধুরীর ‘চন্দ্রাবতীর কথা’ ও অঞ্জন সরকার জিমির ‘ক্ষত’তে অভিনয় করেছেন ইমতিয়াজ বর্ষণ। যদিও এর মধ্যে কোনো সিনেমাই এখন পর্যন্ত মুক্তি পায়নি। সেই হিসেবে তার অভিনীত চতুর্থ সিনেমা ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ তার অভিষেক সিনেমা হতে যাচ্ছে। বিনোদনের সবচেয়ে বড় মাধ্যমে একটি সিনেমার প্রধান অভিনেতা হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার শুরু করতে যাচ্ছেন তাই স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত তিনি।

‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ সিনেমার শুটিং হয়েছে মোহাম্মদপুর, পুরান ঢাকা, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শাহবাগ এবং সদরঘাট সহ আরো কিছু এলাকায়। কোলাহলপূর্ণ এসব জায়গায় শুটিং করাটাও নির্মাতা এবং শিল্পীদের জন্য একটা বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো। তবে ট্রেলারে অনেক দৃশ্যই আলাদা একটা ছাপ ছেড়ে গিয়েছে এটা বলা যায় নিঃসন্দেহে। প্রায় ১৫ বছর ধরে নাটক ও বিজ্ঞাপন নির্মাণের পর ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’র মধ্য দিয়ে এই প্রথম সিনেমা নির্মাণ করলেন মাসুদ হাসান উজ্জ্বল। গত ১৩ই মার্চ সিনেমাটি মুক্তির কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতির কারনে মুক্তির তারিখ পেছানো হয়েছিলো। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রেড অক্টোবরের ব্যানারে চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করছেন আসিফ হানিফ, নির্বাহী প্রযোজকের দায়িত্বে আছেন সৈয়দা শাওন। আগামী ২৩শে অক্টোবর স্টার সিনেপ্লেক্সের সবগুলো শাখায় সীমিত পরিসরে এই সিনেমাটি মুক্তি পাচ্ছে। দীর্ঘ সাত মাসের বিরতি কাটিয়ে সিনেমাপ্রেমী দর্শকেরা আবারো ফিরবেন এই সুস্থধারার মানসম্মত ভিন্নধর্মী সিনেমাটি দেখার জন্য এমনটিই আশা করছেন সিনেমা সংশ্লিষ্টরা।

Previous articleহঠাৎ অসুস্থ পূর্ণিমা, ‘গাঙচিল’র শুটিং বন্ধ
Next articleনাম ভূমিকায় আঁচল, সঙ্গে জয় চৌধুরী

Leave a Reply