অনামিকা জুথি: মাহিয়া মাহি, নামটির সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। অভিনয় গুণে তিনি এখন সবার পরিচিত। তার ভক্তের সংখ্যাও নেহাতই কম নয়। সময় এখন মাহিয়া মাহির।  করোনাকালে যখন সবাই কাজহীন হয়ে বসে আছেন। তখন মাহি ব্যস্ত আছেন নতুন দুই চলচ্চিত্রের শূটিং নিয়ে। ‘নবাব এলএলবি’র শূটিংয়ে অংশ নিয়ে গত রবিবার শুরু করেন সরকারি অনুদানের মাহি-রোশান জুটির প্রথম ছবি ‘আশীর্বাদ’। পুরান ঢাকায় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক এ ছবির শূটিং করেন। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে পূর্ণদৈর্ঘ্য ১৬টি চলচ্চিত্রকে অনুদান দেয়া হয়েছে। এ গুলোর মধ্যে অন্যতম ‘আশীর্বাদ’। ছবিটি প্রযোজনার পাশাপাশি চিত্রনাট্যেকার হিসেবে কাজ করছেন জেনিফার ফেরদৌস।

গেন্ডারিয়ায় দু’দিন শূটিং করে দুই দিনের বিরতি নিয়ে ফের শুক্রবার (২ অক্টোবর) থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দুই দিন ও অটিস্টিক স্কুল দুই দিন ‘আশীর্বাদ’র দৃশ্য ধারণ শুরু। দীর্ঘ দিনের বিরতি শেষে কাজে ফিরে মাহি বলেন, ‘ছবিটি আমার জন্য আর্শীবাদ। যেহেতু অনুদানের সিনেমা এর আগে করা হয়নি তাই প্রস্তাব পেলেই লুফে নেই। মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক কোনো কিছুর সাথে জড়িত থাকতে পারাটাও আর্শীবাদ।’

দীর্ঘ সাত বছরের বিরতি কাটিয়ে ‘নবাব এলএলবি’ ছবির মাধ্যমে ফের পর্দা ভাগাভাগি করবেন মাহি ও শাকিব খান। এর আগে শাকিব-মাহি ‘ভালোবাসা আজকাল’ চলচ্চিত্রে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছিলেন। ছবিটি নিয়ে দর্শকের মাঝে আগ্রহ তৈরি হলেও আর এক সাথে দেখা যায়নি। লম্বা বিরতি শেষে ফের এক হয়ে কাজ করছেন দ্বিতীয় চলচ্চিত্রে। ছবিটি পরিচালনা করছেন অনন্য মামুন। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ছবিটি ওটিটি প্লাটফর্মে মুক্তি পাবে।

খুব শীঘ্রই গানের শূটিংয়ের জন্য মালদ্বীপ যাচ্ছেন মাহি-শাকিব। সেখানে দুটি গান ও অ্যাকশন দৃশ্যর শূটিং হবে। গত ৩০ আগষ্ট শুরু হয় ‘নবাব এলএলবি’ ছবির কাজ। প্রথম সপ্তাহে শূটিংয়ে অংশ নেন মাহি। ছবিতে শাকিব খানকে দেখা যাবে একজন আইনজীবির চরিত্রে। মাহি আইনজীবির সহকারী। ‘নবাব এলএলবি’ ও ‘আর্শীবাদ’ ছবি দুটিতে ভিন্ন দুটি চরিত্রে পাওয়া যাবে মাহিকে। ছবি দুটি নিয়ে তিনি আশাবাদী।

ঢালিউডে অল্প কয়েকজন নায়িকার মধ্যে অন্যতম মাহিয়া মাহি। যার নামে দর্শক হলে ছোটে। ২০১৮ সাল থেকে ২০১৯ সালে পর্যন্ত মাহির যেসব সিনেমা মুক্তি পেয়েছিল তার বেশির ভাগই সফলতার দিক থেকে ছিল শূন্যের কোঠায়। এরপর তিনি বিয়ে ভাঙার গল্প নিয়েও ছিলেন সমালোচনার মুখে। যদিও সেই সমালোচনা ঘুচিয়েছেন মাহি। বর্তমানে মাহির হাতে রয়েছে ওয়াজেদ আলী সুমনের ‘ব্লাড’, রায়হান রাফির‘স্বপ্নবাজি’। মুক্তির অপেক্ষায় আছে মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত ‘আনন্দ অশ্রু’সিনেমাটি।

Previous articleগৌতমের কোরিওগ্রাফিতে নিউইয়র্কের নোনা ফ্যাশনের ফটোশুট
Next article৬ অক্টোবর আসছে ‘পুজো বাড়ির গান’

Leave a Reply