‘মিশন এক্সট্রিম’ খ্যাত প্রোডাকশন হাউজ ‘কপ ক্রিয়েশন’ নির্মাণ করলো ’বিলাপ’ শিরোনামের একটি ডার্ক থ্রিলার ওয়েব সিরিজ। কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’ এবং ‘মিশন এক্সট্রিম’ (১ম ও ২য় খন্ড)-এর কাহিনী ও চিত্রনাট্যকার সানী সানোয়ার এবং যৌথভাবে পরিচালনাক করেছেন সানী সানোয়ার ও ফয়সাল আহমেদ। ওয়েব সিরিজটি খুব শীঘ্রই ওটিটি প্লাটফর্ম ‘সিনেমাটিক’-এ স্ট্রিমিং করা হবে।

‘হঠাৎ করেই ঢাকা শহর থেকে রহস্যজনকভাবে নিরুদ্দেশ হতে থাকে বেশ কয়েকজন শিশু ও নারী-পুরুষ এবং সেই সাথে ঘটতে থাকে কয়েকটি লোমহর্ষ খুনের ঘটনা। পুলিশের স্পেশাল টিম শত চেষ্টা করেও যখন এসব অপরাধের কোন ক্লু খুঁজে পায় না, তখন চরম অদক্ষ হিসেবে পরিচতি সাব-ইন্সপেক্টর রাহাত সন্ধান পেয়ে যায় একটি ভয়ংকর গুপ্তঘাতক চক্রের।’

‘বিলাপ’-এর গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে যাদের দেখা যাবে -শরিফুল রাজ, জাকিয়া বারী মম, শবনম ফারিয়া, রুনা খান, লুৎফর রহমান জর্জ, খায়রুল বাশার, মাজনুন মিজান, মাসুম বাশার, ইনতেখাব দিনার, জয় রাজ, সমাপ্তি মাসুক, দীপু ইমাম, এহসান রহমান, আশরাফুল আশিষ, নবাগত পূজা ক্রুজ, নীলাঞ্জনা নীলা, সুমীত সেনগুপ্ত (স্পেশাল এপিয়ারেন্স) এবং আরো অনেক।

‘বিলাপ’ শবনম ফারিয়ার প্রথম ওয়েব সিরিজ এবং সেই সাথে সে শরিফুল রাজের সাথে প্রথমবারের মত জুটি বাঁধতে যাচ্ছেন। জাকিয়া বারী মম এবং রুনা খানকে ব্যতিক্রমধর্মী দু’টি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে।

লেখক ও পরিচালক সানী সানোয়ার বলেন, ‘ওয়ার্ল্ড মিডিয়াতে সিনেমার পাশাপাশি ওয়েব সিরিজ একটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গা দখল করে নিচ্ছে। গল্প বলার নান্দনিক ঢং এবং নির্মাণ কৌশলে সিনেমাটিক ছাপ থাকার কারণে ওয়েব সিরিজের প্রতি দর্শকদের আগ্রহ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই দর্শক আগ্রহ এবং মার্কেট চাহিদার উপর ভিত্তি করে দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠা ‘সিনেমাটিক’ নামের দেশীয় একটি ওটিটি প্লাটফর্মের জন্য আমরা ‘বিলাপ’ নামের এই ওয়েব সিরিজটি নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এখন থেকে ‘কপ ক্রিয়েশন’ নিয়মিতভাবে সিনেমার পাশাপাশি ওয়েব সিরিজও নির্মাণ করবে।’

শরিফুল রাজ বলেন, ‘গল্প বলার স্টাইল আর নির্মাণ কৌশলে ‘র’ স্টাইল ফলো করে নির্মিত এই ওয়েব সিরিজটি হতে পারে এদেশের অন্যতম জনপ্রিয় একটি সিরিজ। আমি আশা করি আমাদের পরিশ্রমের এই ফসল দর্শক হৃদয় জয় করে নিতে সামর্থ্য হবে।’

জাকিয়া বারী মম বলেন, ‘কপ ক্রিয়েশন বরাবরই মৌলিক থ্রিলার গল্প নিয়ে কাজ করেন। এ ক্ষেত্রেও তাই ঘটেছে। আমার ধারণা এই ডার্ক থ্রিলারটি গল্পের বিচারে এদেশের অন্যতম জনপ্রিয় একটি সিরিজ হিসেবে দর্শক মনে জায়গা করে নিবে।’

শবনম ফারিয়া জানান, ‘আমি কখনো ওয়েব সিরিজে কাজ করিনি। এটার গল্প শুনার পর মনে হয়েছে যে, আমি এই গল্পের পার্ট হতে চাই।’

ওয়েব সিরিজের অপর পরিচালক ফয়সাল আহমেদ জানান, ‘এটি ওয়েব ছিল, না সিনেমা ছিল তা আমি এখনও নিশ্চিত না। কারণ কাহিনী, চিত্রনাট্য, অ্যারেঞ্জমেন্টের বিবেচনায় এটি একটি খন্ডিত সিনেমা হিসেবেই আমরা নির্মাণ করেছি, যার মাঝে দর্শকবৃন্দ সিনেমাটিক আমেজ খুঁজে পাবে।’

ওয়েব সিরিজটিতে সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করেছে মিছিল সাহা এবং এতে স্ক্রিপ্ট সুপারভাইজার হিসেবে ছিলেন হাসানাত বিন মতিন। মিঠুন দেবনাথের তত্ত্বাবধানে শুরু হয়েছে সম্পাদনার কাজ। ওয়েব সিরিজটি প্রযোজনা করেছে টার্ন কমিউনিকেশন্স, যা লাইভ টেকনোলজিসের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।

Previous articleশিল্পীদের আয়কর নথি খতিয়ে দেখবে এনবিআর
Next articleএখনকার নাটক অভিভাবকহীন: কাজী উজ্জ্বল

Leave a Reply