দেশের অন্যতম শীর্ষ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান এবং বাংলা নাটকের পৃষ্ঠপোষক ইভ্যালি’র সঙ্কট কেটে গেছে। এক মাস আগে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালকের ব্যাংক হিসাব ফ্রিজ করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। পরবর্তীতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিশদ তদন্ত চালানোর পর প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক কোনো অনিয়ম না পাওয়ায় রোববার বিকেল থেকে এটির ব্যাংক হিসাবগুলো আবার খুলে দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৭ আগস্ট ই-ভ্যালির ব্যাংক হিসাব ৩০ দিন স্থগিত রাখতে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে চিঠি দেয় বিএফআইইউ। ব্যাংকগুলোতে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছিল, ই-ভ্যালি লিমিটেডের নামে এবং প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন ও এমডি মো. রাসেলের নামে পরিচালিত সব হিসাবের লেনদেন মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের ক্ষমতাবলে পত্র ইস্যু তারিখ থেকে ৩০ দিনের জন্য স্থগিত রাখার নির্দেশনা দেওয়া হলো। লেনদেন স্থগিতা দেশের ক্ষেত্রে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ বিধিমালা ২০১৯ এর ২৬ (২) ধারা বিধান প্রযোজ্য হবে।

এছাড়া বর্ণিত প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের নামে পরিচালিত হিসাব সমূহের হিসাব খোলার ফরম কেওয়াইসি হিসাব খোলার শুরু থেকে হালনাগাদ লেনদেন বিবরণী এবং বর্ণিত সময়ে ওই হিসাবে ৫০ লাখ বা তার বেশি টাকা জমা ও উত্তোলন সংশ্লিষ্ট দলিলাদি পাঠানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়।

পণ্য কিনলেই অর্থ ফেরতের অস্বাভাবিক ‘ক্যাশব্যাক’ অফার দিয়ে ব্যবসা করছে বাংলাদেশি ডিজিটাল বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি। ১০০ থেকে ১৫০ শতাংশ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক অফার দেওয়া হচ্ছে। এ ধরনের ব্যবসায়িক পলিসি বাজারে ব্যবসার প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রে বিরূপ প্রভাব বিস্তার করে একচেটিয়া

উল্লেখ্য, বর্তমান সময়ে বাংলা নাটকের অন্যতম পৃষ্টপোষকের প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করছে ইভ্যালি। এরইমাঝে দেশীয় পণ্যের ব্যাপক বিপননের মাধ্যমে অসংখ্য শিল্প প্রতিষ্ঠানের কার্যকর সহযোগীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। তারা প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি তরুণ উদ্যোক্তাদের অনেক প্রকল্পের পণ্য বিপননে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে।

Previous articleযক্ষ্মায় আক্রান্ত নায়ক ফারুক
Next articleহঠাৎ শুটিংয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লেন অপূর্ব!

Leave a Reply