চিত্রনায়ক কাজী মারুফ ২০১৫ সাল থেকে চলচ্চিত্রে অনিয়মিত। বিয়ে করে আমেরিকায় বসবাস করছেন। আবার দেশে ফিরতে যাচ্ছেন মারুফ। এবার নায়ক নয়, পরিচালক হিসেবে পাওয়া যাবে তাকে। দেশের বাইরে থাকলেও মারুফ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সরব। চলচ্চিত্র থেকে দূরে থাকলেও নিয়মিত চলচ্চিত্রর খোঁজ খবর রাখছেন। করোনার সংক্রমণ কমলে দেশে ফিরেই চলচ্চিত্র পরিচালনার ঘোষণা দিবেন।

এক প্রশ্নের উত্তরে চলচ্চিত্র নিয়ে বলতে গিয়ে মারুফ বলেন, ‘এখন সিনেমা আর সিনেমার জায়গায় নেই। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এখন মরা লাশ। যে যেভাবে পাচ্ছে সে ভাবে কামড়ে খাচ্ছে। চলচ্চিত্রের টাকা আমার রক্তে মিশে আছে। নখ থেকে প্রতিটি জিনিস আমার হয়েছে চলচ্চিত্রের টাকায়। অথচ বর্তমানে চলচ্চিত্রের কথা চিন্তা না করে সবাই ব্যস্ত কাদা ছোড়াছুড়ি নিয়ে।’

তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্রর দূর অবস্থা ও বর্তমান বিভাজনের একমাত্র সমাধান করতে পারেন শিল্পীমনা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার বাবার প্রতিষ্ঠিত এফডিসি একমাত্র তিনিই রক্ষা করতে পারেন। বঙ্গবন্ধুর কন্যা হিসেবে অবশ্যই তার দায়বদ্ধতা আছে। যতোদিন চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি, ইন্ডাস্ট্রির মানুষদের মধ্যে থাকবে ততোদিন কিছুই হবে না।’

মারুফ বলেন, ‘প্রযোজক সমিতিতে সবারই থাকা উচিত না। যারা ছবি নির্মাণে আছেন তাদেরই সদস্য হিসেবে থাকা উচিত। এতো মানুষ ভালো না। এখানে নিয়মনীতি থাকা দরকার।’

Previous articleকরোনা: শাহেদের আমৃত্য কারাদণ্ড
Next articleফটোগ্রাফি ও ভিডিওগ্রাফিতে ক্যারিয়ার গড়তে চান আতিকুর রহমান

Leave a Reply