প্রায় ছয় ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসবাদের পর অবশেষে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) দফতর থেকে বের হলেন দীপিকা পাড়ুকোন। শনিবার সকাল পৌনে দশটা নাগাদ মুম্বইয়ের কোলাবা অ্যাপালো বন্দরের এভলিন গেস্ট হাউসে এসআইটি-র দফতরে মাদক কাণ্ডে জিজ্ঞাসবাদের জন্য পৌঁছন দীপিকা। বের হন বিকেল চারটে নাগাদ।

এনসিবি সূত্রের খবর, জেরায় নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) কাছে দীপিকা স্বীকার করেছেন হোয়াটসঅ্যাপের সেই গ্রুপে মাদক নিয়ে ‘ডি’ এবং ‘কে’-র যে কথোপকথন হয়েছিল তা আদপে দীপিকা (ডি) এবং করিশ্মারই (কে) চ্যাট। একই সঙ্গে দীপিকা এ-ও বলেছেন, মাদক নিয়ে আলোচনা করলেও, তিনি নিজে মাদক নেন না। কোনও দিন নেননি।

মাদককাণ্ডে দীপিকার নাম জড়িয়ে যাওয়ার নেপথ্যে মূলত বছর তিনেক আগের এক হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট। গত সোমবার এনসিবির হাতে আসে ওই চ্যাট। তাতে দেখা গিয়েছিল, ‘ডি’ এবং ‘কে’ নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে মাদক নিয়ে বেশ কিছু কথাবার্তা হয়েছে। কখনও ‘ডি’, ‘কে’র কাছে হ্যাশ চেয়েছে আবার কখনও বা ‘কে’ তাঁকে হ্যাশের জোগানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বলিউডের একাংশ দাবি করেছিলেন ওই ‘ডি’ এবং ‘কে’ যথাক্রমে দীপিকা করিশ্মা।

Previous articleপ্রথমবার সিনেমার গানে মিলন
Next articleবিশ্ব পর্যটন দিবসে ‘আওয়ার রোড টু ফ্রিডম’

Leave a Reply