অবশেষে শিল্পী সংঘের সহায়তায় দাফন হয়েছে অভিনেত্রী মিনু মমতাজের মরদেহ। বেশ অনেক দিন থেকে কিডনি এবং চোখের সমস্যায় ভুগছিলেন অভিনেত্রী মিনু মমতাজ। অবশেষে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টায় রাজধানীর গ্রীন লাইফ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। ৬৬ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত ছিলেন।

জানা যায়, করোনায় আক্রান্ত মিনু মমতাজকে ৪ সেপ্টেম্বর থেকে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত হবার পর তাকে প্রায় ১০ দিন আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ বাবদ হাসপাতালের বিল বকেয়া ছিলো ৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা। সে টাকা শোধ করে গতকাল তার মরদেহ নিতে যাননি অভিনেত্রীর পরিবারের কেউ। ফলে মর্গেই পড়ে ছিলো তার মরদেহ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অভিনেত্রীর দুই পুত্রের একজন থাকেন আমেরিকায়। আরেকজন মানসিক ভারসাম্যহীন। তার পক্ষে এত টাকা বিল মিটিয়ে মায়ের মরদেহ হাসপাতাল থেকে নেয়ার সামর্থ্য নেই। যার ফলে মৃত্যুর পরও ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে অভাব-অনটনে শেষ জীবন কাটানো মিনু মমতাজকে।

এদিকে আজ বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) অভিনেত্রীর ভাগ্নি রওশনের পুত্র সৌরভের তত্ত্বাবধানে তার সৎকার হয়েছে। তার দাফনের দায়িত্ব নিয়েছে স্বেচ্ছ্বাসেবী সংগঠন আল রশিদ ফাউন্ডেশন।

আরও জানা যায়, হাসপাতালের বকেয়া বিলে কর্তৃপক্ষ মানবিকতা দেখিয়ে কিছু ছাড় দিয়েছেন। বাকি যেটা ছিলো সেটা ভাগ্নি রওশনের পুত্র সৌরভ ও অভিনয় শিল্পী সংঘ মিলে বহন করছে। শিল্পী সংঘ তার চিকিৎসার জন্য ৫ লাখ টাকার অনুদান দিয়েছেন। আজ বাদ আসর মিনু মমতাজককে মিরপুরের বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হয়।

Previous articleঅক্ষয় আমায় ইচ্ছে করে ব্যবহার করেছে: শিল্পা
Next articleগভীর সংকটে ঢাকাই চলচ্চিত্র

Leave a Reply