সাংস্কৃতিক অঙ্গনে এক সংগ্রামী মানুষের নাম মাহবুব আমিন মিঠু। দেশের নিজস্ব সংস্কৃতিকে কিভাবে বিকশিত করা যায়- সে চেষ্টাই তিনি করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। আর এ লক্ষ্যেই নিজ প্রচেষ্টায় গড়ে তুলেছেন ঢাকার উত্তরাভিত্তিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘গীতাঞ্জলি ললিতকলা একাডেমি’।

‘সুস্থ সাংস্কৃতিক শিক্ষার লক্ষ্যে’ ২০০৪ সালে বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের কয়েকজন শিল্পী ও অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলীর সম্মিলনে কন্ঠ সংগীত, নৃত্য, তবলা, গীটার, অংকন, আবৃত্তি ও অভিনয় এবং পরবর্তীতে বেহালা, বাঁশি, সেতার ও আধুনিক নৃত্য মোট ১১ টি বিভাগের সমন্বয়ে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অমর সৃষ্টি গীতাঞ্জলির নামনুসারে ‘গীতাঞ্জলি ললিতকলা একাডেমী’ উত্তরায় প্রতিষ্ঠিত হয়।

ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগী এই মানুষটি মনে করেন, ‘সাংস্কৃতিক শিক্ষা শুধুমাত্র একাডেমিক শিক্ষার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, এটি একটি পারফরমিং আর্ট। শিক্ষার্থীরা একাডেমি থেকে যে শিক্ষা গ্রহণ করল তা প্রয়োগের জন্য অবশ্যই একটি প্লাটফর্ম লাগবে, যা কিনা তাদেরকে দর্শক-শ্রোতার কাছাকাছি নিয়ে যাবে।

Previous articleশততম পর্বে ‘তোলপাড়’
Next articleছন্দে ফিরছে শোবিজ অঙ্গন

Leave a Reply