বাংলাদেশের সবার্ধিক ছবির নির্মাতা, চিত্রনাট্যকার ও প্রযোজক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগে প্রযোজান প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার নতুন ছবি থেকে বাদ পড়ছেন! মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগের আখ্যা দিয়ে ছবি থেকে বাদ দিচ্ছেন সেলিম খান।

চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়া সম্প্রতি নতুন বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন। ছবিগুলো নির্মাণ করবেন গুণী নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, কাজী হায়াত, এফ আই মানিক, মালেক আফসারী, শাহীন সুমন, শামীম আহমেদ রনি। এরইমধ্যে শামীম আহামেদ রনি’র ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ শুটিং শুরু হয়েছে।

এদিকে, ২০০৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বীর সৈনিক’ নামক একটি ছবির নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগ উঠেছে। তার বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এটিএম মাকসুদুল হক ইমু ও বাংলাদেশ প্রদর্শক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শরফুদ্দিন এলাহী সম্রাট এর পক্ষে অ্যাডভোকেট মোস্তফা কামাল মুরাদ ও অ্যাডভোকেট চৌধুরী মোঃ রেওদায়ন-ই-খুদা আইনি নোটিশ পাঠান। দুই দিনের মধ্যে নোটিশের উত্তর না দিলে মামলা করবেন বলে নোটিশে উল্লেখ করেন সম্রাট।

অভিযোগের সূত্র ধরে যোগাযোগ হয় শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খানের সাথে। তিনি জানান, ‘নাম ঠিক না হওয়া শাপলা মিডিয়া থেকে একটি ছবি পরিচালনা করবেন নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। আমি তার নোটিশ পাওয়ার ব্যাপারে অবগত নই। এ রকম যদি হয়ে থাকে তাহলে মুক্তিযুদ্ধ বির্তকিত কাউকে নিয়ে কাজ করব না। আমার কাছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আগে। বির্তকিত কাউকে নিয়ে কাজ করার প্রশ্নই আসে না। স্বাধীনতার স্বপক্ষে নন এমন কেউর সাথে কখনই শাপলা মিডিয়া কাজ করবে না। কারণ শাপলা মিডিয়া বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী।’

এ ব্যাপারে জানতে দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘শাপলা মিডিয়া থেকে একটি ছবির ব্যাপারে কথা হয়েছে। সে যদি বির্তকের অভিযোগ টেনে আমার সাথে কাজ না করে তাহলে কিছু করার নেই। আমি কাজ করতে ইচ্ছুক। আমি আগামীকাল নোটিশের উত্তর দেব।’

Previous articleসব কিছুর একমাত্র সমাধান বাজেট: তমাল
Next articleঅনাকাঙ্ক্ষিত ভুল হিসেবে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন: মুনমুন

Leave a Reply