রঞ্জু সরকার: অভিনেতা সঞ্জীব আহমেদ। টেলিভিশন নাটকে কমিডিয়ান অভিনেতা হিসেবে বেশ জনপ্রিয়। ২০০৪ সালে ‘জিম্মি’ নাটকের মাধ্যমে প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান। এ পর্যন্ত শতাধিক নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। সম্প্রতি সঞ্জীব শেষ করেছেন একুশে টিভির জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘ভ্যাজাইল্লা গ্রাম’ নাটকের তৃতীয় লটের শুটিং। হাসনাহেনায় সম্প্রতি দৃশ্য ধারণ শেষ হয়েছে। এটি পরিচালনা করেছেন সোহেল তালুকদার।

এ নাটকে কি চরিত্র দেখা যাবে জানতে চাইলে এ অভিনেতা জমজমাটকে বলেন, ‘আমি কাজী চরিত্রে অভিনয় করেছি। কাজী বিয়ে পড়াতে গিয়ে বিপদে পরে। প্রথমে বর বিয়েতে রাজি না, একটা সময় রাজি হয়। তারপর সে দেখতে পায় দুই কনের মধ্যে তুমুল ঝগড়া। বর যাকে পছন্দ করে তার সাথে বিয়ে হয়। পরবর্তীতে দেখা যায় যার বিয়ে হচ্ছে সে পুরোটাই স্বপ্ন দেখতেছে। বাস্তবে বিয়ে হচ্ছে না। এমনই হাস্যরসে ভরা নাটকটি।’

বেশির ভাগ নাটকেই আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলতে দেখা যায়। কোনটা আপনার কাছে বেশি ভালো লাগে এবং ভাষা নিয়ে কোন সমস্যা হয় কি? ‘আমার কাছে দুইটাই অনেক ভালো লাগে। আমার শুরুটা হয়েছিল নোয়াখালী ভাষা দিয়ে। প্রথমে বলতেই পারতাম না অনেক কষ্ট হয়েছিল বলতে। লাভলু ভাইয়ের ১০৪ পর্বের একটি সিরিয়াল নাটকে এমনটা হয়েছিল। নাটকের নাম ছিল ‘ঘর কুটুম’। বিন্দাবন দাসের লেখা নাটকটি নোয়াখালীদের নিয়ে। লাভলু ভাই যখন বললেন নোয়াখালী ভাষায় কথা বলতে হবে পারবি? আমি বললাম জি ভাই পারব। পরে নোয়াখালীর যত ছেলে মেয়ে ছিলো সবার সাথে যোগাযোগ শুরু করলাম। আর গল্পে যা ছিলো ওটা নোয়াখালী ভাষায় প্র্যাকটিস করতাম। এভাবে ৫/৬ মাস প্র্যাকটিস করার পর আর কোন সমস্যা হয়নি।’

সঞ্জীব দীর্ঘদিন ধরেই নাটকে কাজ করছেন। তাকে দুটি চলচ্চিত্রেও দেখা গেছে। তবে চলচ্চিত্রে নিয়মিত পাওয়া যায়নি। বাণিজ্যিক ছবিতে কাজ করার ইচ্ছে আছে? ‘বাণিজ্যিক ছবিতে কাজ করার ইচ্ছে নেই কারণ সেখানে আমাকে জোকার বানিয়ে ছাড়বে তাই কাজ করতে চাই না। নাটকে তো এগুলো নেই। আমরা কষ্ট করে অভিনয় করছি। যখন জোকার টাইপের চরিত্র করা হবে তখন আর কেউ মূল্যায়ন করবে না। আমাদের একটা ভেলু আছে। আমাদের দেশে কমেডিয়ানদের কোন মূল্যায়ন করে না। চার্লি চ্যাপলিন যদি আমাদের দেশে জন্ম গ্রহণ করতো তাহলে কিন্তু এতো বড় চার্লি চ্যাপলিন হতে পারতো না। শতাব্দী সেরা অভিনেতা কোন দিনই হতো না।’

ভবিষ্যতে পরিচালনায় দেখা যাবে? ‘পরিচালক তো হতে চাই কিন্তু আমদের দেশে যে বাজেট তাতে কি করে সম্ভব। কম বাজেটে যদি কাজ করি তাহলে দর্শক গালাগালি দিবে জোকার বলে। ইচ্ছে আছে দেখা যাক কি হয়।’

Previous articleআলমগীর-শাবানা’র চরিত্রে আশিক-হিমি
Next articleপরিকল্পিত কোনো আয়োজন নেই: নাদিয়া আহমেদ

Leave a Reply