রঞ্জু সরকার: চিত্রনায়িকা মৌ খান। মডেল হিসেবে শোবিজে কাজ শুরু করলেও বর্তমানে চলচ্চিত্রে নিয়মিত অভিনয় করতে চান। বড় পর্দায় অভিষেক হয় মোহাম্মদ আসলাম পরিচালিত ‘প্রতিশোধের আগুন’ চলচ্চিত্র দিয়ে। মুক্তির অপেক্ষায় আছে মৌ অভিনীত সুজন বড়ুয়া পরিচালিত ‘বান্ধব’। নির্মাতা জানান সিনেমা হল খুললেই ছবিটি মুক্তি পাবে। এদিকে প্রথমবারের মতো ওয়েব সিরিজে কাজ করলেন মৌ। বর্তমান ওয়েব সিরিজ ঘিরে বির্তক থাকলেও শাহীন সুমন পরিচালিত ‘মাফিয়া’ গল্প নির্ভর ওয়েব সিরিজ। শালীনতা বজায় রেখেই কাজ হয়েছে বলে জানান।

মৌ জমজমাটকে বলেন, ‘প্রথমবারের মতো ওয়েব সিরিজে কাজ করলাম। শাহীন সুমন ভাইয়ের মতো গুনী একজন নির্মাতার কাজ করতে পেরে ভালো লাগছে। কাজ করে সন্তুষ্ট। শাপলা মিডিয়ার মতো বড় একটা প্রতিষ্ঠান এবং প্রতিটি শিল্পী, টেকনিশিয়ান এবং ক্যামেরার পিছনে যারা আছে সবাই অনেক হেল্পফুল। কাজটি করতে পেরে আমার অনেক ভালো লাগছে। আমি আমার জায়গা থেকে শতভাগ চেষ্টা করেছি কাজটি ভালোভাবে করার জন্য। আর যেহেতু তাদের সাথে এটা আমার প্রথম কাজ শুরুতে একটু নার্ভাস ছিলাম পরে সবাই বিষয়টি এতো সহজ করে নিছে পরে কোন সমস্যা হয়নি। গল্পটি এতো চমৎকার যে কেউ শুনলেই কাজ করতে আগ্রহী হতো। এখানে ভালোবাসা আছে, ধোকা আছে। এক কথায় গল্পটা শুনেই আমি রাজি হয়ে গেছি। ওয়েব সিরিজটি নিয়ে আমি আশাবাদী।’

ওয়েব সিরিজ মানেই সাহসী দৃশ্য। গল্পের প্রয়োজনে যদি সাহসী চরিত্র উপস্থাপন করতে হয় সে ক্ষেত্রে আপত্তি আছে? ‘আমাদের সমাজে যতটুকু দেখানো সম্ভব ততোটুকুই করতে হবে। মানুষ যাতে নেগেটিভ না বলে এমন কোন চরিত্র থাকলে অবশ্যই করব। গল্পের প্রয়োজনে ছাড় দিতে চাই। যেখানে অভিনয়ের সুযোগ আছে। নিজেকে অভিনেত্রী হিসেবে উপস্থাপন করা যাবে।’ মৌ অভিনীত একটি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে। তার কাছে প্রশ্ন রাখি অনেক নায়িকাই এক দুটি সিনেমা করার পর হারিয়ে যায়। এ ব্যাপারে কি বলবেন? ‘আসলে আমার দিক থেকে বললে আমার মাত্র একটি সিনেমা রিলিজ হয়েছে। আমি মোট তিনটি সিনেমা করেছি বাকি দুইটি মুক্তির অপেক্ষায়। পরিচালকরা যদি আমাদের কাজের ক্ষেত্রে যদি তারা আর একটু সিরিয়াস হয় এবং আমাদের মতো নতুনদের কাজের সুযোগ করে দেয় তাহলে আমরা অবশ্যই ভালো করবো। আর এক-দুটি সিনেমা দিয়ে শিল্পীর মূল্যায়ন করা যায় না। আমরা যারা নতুন তারা তো কাজ শিখে আসিনি সুতরাং আমাদেরকে ভালো করে শিখিয়ে নিলে অবশ্যই আমরা ভালো কাজ করবো। ভালো গল্প ও ভালো নির্মাতার হাতে পড়লে আমরাও ভালো করবো।’

বর্তমান চলচ্চিত্রর অবস্থা বেহাল। দীর্ঘ পাঁচ মাস ধরে সিনেমা হল বন্ধ। এ সময়ে বড় পর্দার অনেক তারকা শিল্পীই ছোটপর্দায় কাজ করছেন। মৌয়ের কাছে জানতে চাই নাটকে কাজ করার ইচ্ছে আছে কি? তিনি বলেন, নাটকে আপাতত কাজ করার ইচ্ছে নেই। যেহেতু আমি সিনেমার মানুষ সিনেমা নিয়েই থাকতে চাই। তবে ভালো গল্প চরিত্র পেলে দেখা যেতে পারে। মৌ খানের যে কোন গল্পের ছবিতে কাজ করতে আপত্তি নেই। অভিনয়ের সুযোগ থাকলে সব ধরনের গল্পে দেখা যাবে। নায়িকা নয় অভিনেত্রী হতে চান তিনি।

মৌয়ের পছন্দের অভিনেত্রী শাবানা, ববিতা, কবরী, শাবনুর, সুচরিতা অন্যতম। তাদের অভিনয় দেখেই বড় হয়েছেন। তাদের মতো নিজেকে রঙিন পর্দায় দেখার স্বপ্ন দেখেন। এরইমধ্যে স্বপ্নটি পূরণও হয়েছে। নিজেকে কোন পর্যায়ে দেখতে চান? নিজেকে একজন ভালো ও সফল অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে চাই। অভিনয় দিয়ে দর্শকের মনে দাগ কাটতে চাই। জন্ম থেকে কোন মানুষই কোন কিছু শিখে আসে না যত বেশি কাজ করবে ততো বেশি শিখবে। একেকজন পরিচালকের সাথে কাজ করে একেকটা অভিজ্ঞতা হচ্ছে। আমার তো এতো বেশি কাজ করা হয়নি আমি সবার কাজ থেকেই একটু একটু করে শেখার চেষ্টা করছি।

Previous articleসঙ্গীত শিল্পী আব্দুল জব্বারের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ
Next articleনা ফেরার দেশে পরিচালক মাসুদ আজাদ

Leave a Reply