সরকারি অনুদান পাওয়ার পর থেকেই প্রযোজক ও কাহিনীকার জেনিফার ফেরদৌস তার ‘আশীর্বাদ’ ছবির প্রধান নারী চরিত্র সুবর্ণার জন্যে নায়িকা খুঁজছিলেন। অবশেষে সরকারি অনুদানে নির্মিতব্য এই ছবির সুবর্ণা চরিত্রে অপু বিশ্বাসকে চূড়ান্ত করে তাকে চুক্তিবদ্ধ করিয়েছেন। এই প্রতিবেদককে জেনিফার ফেরদৌস নিজেই জানিয়েছেন এই তথ্য। অপুও জানিয়েছেন, সুবর্ণা চরিত্রে তিনিই অভিনয় করছেন।

জেনিফার ফেরদৌস জানান, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে পূর্ণদৈর্ঘ্য ১৬টি চলচ্চিত্রকে অনুদান দেয়া হয়েছে। এগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ‘আশীর্বাদ’। প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌস জানান, সরকারি অনুদানের এই চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করবেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয়ী তরুণ ও গুণী চিত্রনির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক।

জানা যায়, ‘আশীর্বাদ’ চলচ্চিত্রটি অনুদান পাওয়ার পর থেকেই আলোচনায় ছিল ছবির মূল চরিত্র সুবর্ণা কে হচ্ছেন। অভিনয়শিল্পী কে কে থাকছেন সেটিও আলোচনায় ছিল। অবশেষে ১৬ আগস্ট (রবিবার) সুবর্ণা চরিত্রের জন্যে জনপ্রিয় তারকা অপু বিশ্বাসকে চুক্তিবদ্ধ করেন জেনিফার ফেরদৌস। ঢাকার একটি পাঁচ তারকা হোটেলে অপু বিশ্বাস চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করে ‘আশীর্বাদ’ ছবির সুবর্ণা চরিত্রে অভিনয়ের জন্যে আনুষ্ঠানিকভাবে চুক্তিবদ্ধ হন। প্রযোজনার পাশাপাশি এই ছবির কাহিনী ও চিত্রনাট্য রচনা করেছেন জেনিফার ফেরদৌস। সংলাপ লিখেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু।

নতুন ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে অপু বিশ্বাস বলেন, ‘জেনিফার আপু দারুন একটি কাহিনী লিখেছেন। ছবির সুবর্ণা চরিত্রটি অসাধারণ লেগেছে। লকডাউন কাটিয়ে আমরা আবার শুটিংয়ে ফিরছি এটা অবশ্যই ভালো লাগার খবর। নতুন করে কাজে ফিরতে পেরে ভীষণ ভালো লাগছে। আমি আশা রাখবো আমার দর্শক ভক্তরা আগের মতোই আমার পাশে থাকবেন। আমার বিশ্বাস জেনিফার আপুর ‘আশীর্বাদ’ একটি অসাধারণ চলচ্চিত্র হবে। ‘আশীর্বাদ’ সিনেমার জন্য সবার আশীর্বাদ চাই।’

ছবির প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌস সুবর্ণা চরিত্রে অপু বিশ্বাসকে নির্বাচন করা প্রসঙ্গে বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক এই ছবির সুবর্ণা চরিত্রে অপুকেই আমার মানানসই মনে হয়েছে। সুবর্ণা চরিত্রটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রীর চরিত্র। মুক্তিযুদ্ধের আগের উত্তাল রাজনীতি এবং মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি নিয়ে ছবিটি নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রধান চরিত্রে নায়িকা হিসেবে অপু বিশ্বাসকে চূড়ান্ত করে চুক্তিবদ্ধ করলাম। বাকী অভিনয়শিল্পীদের খুব শীঘ্রই চূড়ান্ত ভাবে নাম ঘোষণা করা হবে।’

ছবিটির শুটিং শুরুর বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আশীর্বাদ’ চলচ্চিত্রের পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে। ইচ্ছে আছে চলতি মাসের শেষের দিকে শুটিং শুরু করার। আর সেটা যদি সম্ভব না হয়, তাহলে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে শুরু হবে এই ছবির শুটিং।’

Previous article১৫ আগস্ট: ফিল্ম আর্কাইভে চলছে স্থিরচিত্র প্রদর্শনী
Next articleনওমী-জামশেদের ‘কাজল পাখি’

Leave a Reply