বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের সর্বোচ্চ সম্মাননা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। চলচ্চিত্র শিল্পের বিকাশ ও উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য ব্যক্তি বিশেষ, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র ও প্রামাণ্যচিত্রকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করে থাকে। এবারের আসরের জন্য তথ্যমন্ত্রণালয় সম্প্রতি জুরি বোর্ড গঠন করেছে। ২০১৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাগুলোর মধ্য থেকে পুরস্কার প্রদানের জন্য ১৩ সদস্য বিশিষ্ট এই জুরি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। এতে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) জাহানারা পারভিন। অন্য সদস্যরা হলেন মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম (যুগ্নসচিব তথ্য মন্ত্রণালয়), নুজাত ইয়াসমিন (ব্যবস্থাপক, এফডিসি), মোহাম্মদ নিজামুল কবির (মহাপরিচালক ফিল্ম আর্কাইভ)। হাবিবা রহমান (চেয়ারম্যান, চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়), শাহ আলম কিরন (চলচ্চিত্র পরিচালক), সুচরিতা (অভিনেত্রী), মোহাম্মদ খোরশেদ আলম (সংগীতশিল্পী), ইমদাদুল হক মিলন (কথাসাহিত্যিক), জসিম উদ্দিন (বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান)। তবে তিনজন সদস্য জুরি বোর্ডে থাকতে অপরাগতা প্রকাশ করেন। পরে এই তিনজনের পরিবর্তে নতুন সদস্য নেওয়া হয়েছে। নতুন এ তিন সদস্য হলেন হাসান মতিউর রহমান (গীতিকার ও সংগীত পরিচালক), জাহাঙ্গীর হোসেন মিন্টু (চিত্রগ্রাহক), রিয়াজ (অভিনেতা)।

সবশেষ তথ্য মতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরুষ্কার ২০১৯ এর জন্য মূলধারার বাণিজ্যিক ২৯টি চলচ্চিত্র সহ স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য ছবি মিলিয়ে মোট ৪৩টি ছবি জমা দিয়েছেন এর সাথে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রযোজক ও পরিচালকেরা। বিচক্ষণ জুড়ি বোর্ডের সম্মানিত সদস্যরা খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখে বিচার বিশ্লেষণ করে মোট ২৮টি ক্যাটাগরির বিপরীতে নির্বাচিত করবেন বর্ষসেরা ছবি, পরিচালক, শিল্পী ও কলা-কুশলীদের। রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ এই সম্মানের জন্য চলচ্চিত্র পাড়ার সকলেই বেশ মুখিয়ে থাকেন। বলছিলাম জুড়ি বোর্ডের কথা! তথ্য মন্ত্রণালয়ের তত্বাবধানে দেশের স্বনামধন্য বুদ্ধিজীবী, চলচ্চিত্র ও নাট্য ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিক, সাহিত্যিক, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর, সিনিয়র শিল্পী ও সরকারের উর্ধতন কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত হয়ে থাকে সম্মানিত জুড়ি বোর্ডের সদস্যরা! যাদের বিচক্ষণ মেধা ও মননশীলতায় পুরুষ্কারের জন্য যোগ্যরা নির্বাচিত হয়ে থাকেন।

এবার ২০১৯ এর এই জুড়ি বোর্ডের সম্মানিত সদস্য অর্থাৎ বিচারকের দায়িত্ব দেয়ার জন্য অভিনেতা আলীরাজকে নির্বাচিত করা হয়! তার নামে তথ্য মন্ত্রণালয় চিঠিও ইস্যু করে। ঠিক সেই মুহূর্তে জুড়ি বোর্ডের সদস্য সচিব, চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সম্মানিত ভাইস চেয়ারম্যান জনাব মোঃ জসীম উদ্দিন জানতে পারেন জুড়ি বোর্ডের জন্য নির্বাচিত বিচারক আলী রাজ ২০১৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি মুক্তিপ্রাপ্ত ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’ ছবিতে অভিনয়ের সুবাদে পুরুষ্কারের জন্য তার পক্ষে প্রযোজক আবেদন করেছেন। নীতিমালা অনুযায়ী পুরুষ্কারের জন্য আবেদন করা কেউ জুড়ি বোর্ডের সদস্য হতে পারবেন না। ভাইস চেয়ারম্যান সাহেব তৎক্ষনাৎ আলীরাজকে ফোন করে বলেন, আলীরাজ ভাই, আপনাকে মন্ত্রণালয় থেকে এবারের জুড়ি বোর্ডের সম্মানিত সদস্য করা হয়েছে। কিন্তু আপনার একটা ছবিতে অভিনয়ের প্রেক্ষিতে আপনার পক্ষে ২০১৯ এর পুরুষ্কারের জন্য আবেদন করা হয়েছে। আপনি যদি পুরুষ্কারের আবেদনটি উঠিয়ে নিতে বলেন তবে আপনাকে আমরা সম্মানিত সদস্য করে নিতে পারতাম।

আলীরাজ কিছু না ভেবেই উত্তর দিলেন- জসীম ভাই অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। ধন্যবাদ মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট সকলকে। আমাকে সম্মানিত সদস্য নির্বাচিত করায়। ২০১৯ এ যে ছবিটির জন্য আমাকে নির্বাচিত করে আবেদন করা হয়েছে তার নাম ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’। ছবিটি পরিচালনা করেছেন শামীমুল ইসলাম শামীম। ওয়ান স্টার মুভিজ ইন্টারন্যাশনাল এর ব্যানারে ছবিটি প্রযোজনা করেছেন মোজাম্মেল হক খাঁন। গল্পে এই প্রথম আমি একজন নাপিতের চরিত্র প্লে করেছি। জসীম ভাই, অনেকেই জুড়ি বোর্ডের এমন সম্মানের পদের জন্য মুখিয়ে থাকেন। আমিও আছি। কিন্তু সেটা আমার শিল্পী সত্ত্বাকে ছোট করে নয়। আমি প্রথমে একজন শিল্পী। তারপর বাকি সব। আজকে যে জন্য আমাকে আপনারা নির্বাচিত করেছেন সেটাও এই শিল্পী হওয়ার সুবাদে। সুতরাং আমি বিনয়ের সাথে সসম্মানে আপনাদের এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করছি! পুরুষ্কার পাই বা না পাই, আমার চেয়ে যোগ্য অন্য কেউ পেলেও আমি খুশি। কিন্তু কোনো ভাবেই আমি শিল্পী পুরুষ্কার উইড্রো করে বিচারক হতে ইচ্ছুক নই। আমাকে ক্ষমা করবেন প্লিজ!

আমদের ভাইস চেয়ারম্যান সাহেব আলীরাজের কথায় বিষ্মিত হয়েছিলেন কি না জানি না। তবে আমি একদমই অবাক হইনি। একজন আলীরাজকে আমি হাড়ে হাড়ে চিনি। তিনি দিনে রাতে মাসে বছরে সারা জীবনে আগাগোড়া একজন শিল্পী। এতো সজ্জন মানুষ চলচ্চিত্র নাটকে আর খুব একটা নেই। আমি তাই একদমই অবাক হইনি। স্যালুট আলীরাজ! স্যালুট আব্বা!

শামীমুল ইসলাম শামীম, লেখক-চলচ্চিত্র পরিচালক।

Previous articleপ্রয়োজন অনুযায়ী বাজেট না দেওয়ায় কাজের মান কমে যাচ্ছে: শতাব্দী ওয়াদুদ
Next articleলাইফ সাপোর্টে আলাউদ্দিন আলী

Leave a Reply