জমজমাট প্রতিবেদক: তরুণ অভিনেতা তানভীর মাসুদ। যে কোন চরিত্রে সাবলীল অভিনয়ে অদ্বিতীয় তিনি। অভিনয়ের সব জগতেই বিচরণ রয়েছে। ঈদুল আজহা উপলক্ষে সম্প্রতি ঢাকা ও পূবাইলের বিভিন্ন লোকেশনে ভিন্ন ভিন্ন গল্পের তিনটি ধারাবাহিক নাটকের শুটিং শেষ করেছেন। এস জে মোশন পিকচার্স এর প্রযোজনায় নাটক তিনটি হচ্ছে জাকির হোসেন উজ্জ্বল এর রচনায় এস এম শাহীনের পরিচালনায় বৈশাখী টিভিতে ‘আয়নামতির সংসার’, মম রুবেলের রচনায় কাজী সাইফ আহমেদের একুশে টিভির জন্য ‘জামাই আমার পয়সাওয়ালা’, দেশ টিভির জন্য মঈন খানের রচনায় কাজী সাইফ আহমেদের পরিচালনায় ‘মামা ভাগ্নে যেখানে বিপদ নেই সেখানে’। এছাড়াও তানভীরকে ঈদের দুটি খন্ড নাটকে দেখা যাবে। পাঁচটি নাটকেই তার বিপরীতে দেখা যাবে এ সময়ের জনপ্রিয় শিল্পীদের। প্রতিটি নাটকের গল্পে রয়েছে বৈচিত্র্যতা। বিনোদনের পাশাপাশি দর্শক নাটকগুলোতে বার্তা পাবে বলে জানান তানভীর।

তানভীর মাসুদ বলেন, প্রত্যেকটি নাটকে দর্শক আমাকে ব্যতিক্রমী চরিত্রে দেখতে পাবে। বরাবরই চেষ্টা থাকে নিজেকে ব্যতিক্রম ভাবে উপস্থাপন করার। আশা করছি দর্শক ঈদের নাটকগুলো পছন্দ করবে।

তানভীর অভিনীত ‘একটি গ্রাম একটি শহর’, ‘বকুলপুর’, ‘আগুনপাখি’ দীর্ঘ ধারাবাহিক তিনটি করোনার কারণে প্রচার স্থাগিত রয়েছে। ঈদের পর নাটকগুলো পুনরায় প্রচারিত হবে। মাছরাঙা টিভিতে কায়সার আহমেদ এর পরিচানায় প্রচারে আছে ‘চাঁন বিরানী ’। ঈদের পর তানভীর নতুন দুটি ধারাবাহিকের শুটিং শুরু করবেন।

উল্লেখ্য, ‘বকুলপুর’ ধারাবাহিকে ফাটা বোরহান চরিত্রে তানভীর দর্শকের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে এবং সবার কাছে তার চরিত্রটি প্রসংশিত হয়েছে।

Previous articleসাত পর্বের ধারাবাহিক ‘মামা-ভাগ্নে যেখানে বিপদ নেই সেখানে’
Next articleঅভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালনা করতে ভালো লাগে: মিলন

Leave a Reply