রুহুল আমিন ভূঁইয়া: প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস বাংলাদেশ চলচ্চিত্রে মরার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে আঘাত হেনেছে। দীর্ঘ পাঁচ মাস ধরে সারা দেশের সিনেমা হল বন্ধ। বাস্তবতা বলছে কোরবানির ঈদেও তালা ঝুলবে সব প্রেক্ষাগৃহে। পাঁচই জুন থেকে শূটিং, ডাবিং ও এডিটিং শুরু হলেও শুধু বন্ধ আছে প্রেক্ষাগৃহ। দীর্ঘদিন হল বন্ধ থাকায় বড় ক্ষতির সম্মুখীন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা। ঈদ উৎসবে বড় বাজেটের সিনেমাগুলোর প্রযোজকরা সিনেমা মুক্তির প্রস্তুতি নেওয়ায় সিনেমা হল না খোলায় বড় ধরনের লোকশানের মুখে পড়েছেন। লাইট, ক্যামেরা, অ্যাকশনের শব্দ নেই বিএফডিসিতে, রঙিন দুনিয়ার আঁতুর ঘর এখন অনেকটাই সাদামাটা। করোনা বাস্তবতায় বাংলা সিনেমার ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত সংশ্লিষ্টরা। এই ঈদেও হল খুলছে না।

চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা মনে করেছিলেন দু-হাজার বিশ সালে ঘুরে দাড়াবে নিভে যাওয়া ঢাকাই চলচ্চিত্র। বড় বাজেটের গল্প নির্ভর ছবিগুলো হলবিমুখ দর্শককে আবারও হলমুখি করবে। তবে করোনা ভাইরাসে থমকে গেছে পুরো পৃথিবী। আটকে গেছে জনজীবন। গত রোজার ঈদে মুক্তি পায়নি নতুন পুরাতন কোন ছবি। অনিশ্চিত ভবিষ্যতে ঢাকাই চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি। বন্ধ হল গুলো খুলবে তো? আবার কবে সিনেমা হলে একত্রিত হবে বাংলা সিনেপ্রেমীরা? মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ও নির্মাণধীন ছবিগুলোর ভবিষ্যত কি হবে? এমন প্রশ্ন এখন সবার মুখে মুখে। বেশ কিছু ছবি মুক্তির জন্য প্রস্তুত। তারমধ্যে রয়েছে দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালতি ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ-২’। এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার জুটি হয়েছেন চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস ও বাপ্পি চৌধুরী। গত ২০ মার্চ ছবিটি মুক্তির কথা থাকলেও করোনার কারণে পিছিয়ে যায়।

নাট্যনির্মাতা চয়ানিকা চৌধুরীর প্রথম চলচ্চিত্র ‘বিশ্বসুন্দরী’। ছবিটিতে অভিনয় করেছেন সিয়াম-পরীমনি। গত ২৭ মার্চ ছবিটির মুক্তির তারিখ নির্ধারণ ছিল। তবে করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে পিছিয়ে যায় মুক্তির তারিখ। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা সৈকত নাসির আলোচিত ‘ক্যাসিনো’ কান্ডের ঘটনা নিয়ে নির্মাণ করেছেন ‘ক্যাসিনো’ চলচ্চিত্র। এ ছবিতে নিরবের বিপরীতে অভিনয় করার মাধ্যমে প্রথমবার নায়ক বদল করলেন আলোচিত শবনম বুবলী। সিয়াম-মিমকে জুটি করে রায়হান রাফি লাইফ টেকনোলজির ব্যানেরে নির্মাণ করছেন সিনেমা ‘ইত্তেফাক’। বহুল প্রতিক্ষীত সিনেমা ‘বিউটি সার্কাস’। একটি সার্কাস দলের সুখ দুঃখের গল্প নিয়ে ছবিটি। এতে অভিনয় করেছেন দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান ও ফৌরদৌস। বরগুনার চাঞ্চল্য রিফাত হত্যাকান্ড নিয়ে রায়হান রাফি নির্মাণ করেছেন ‘পরাণ’। ছবিটিতে অভিনয় করেছেন বিদ্যা সিনহা মিম, ইয়াশ রোহান ও শরিফুল রাজ।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এর গল্প অবলম্বনে নাঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল নির্মাণ করছেন ‘গাঙচিল’। ছবিটিতে অভিনয় করছেন ফৌরদৌস, পূর্ণিমা, দুই বাংলার দর্শকপ্রিয় নায়িকা ঋতুপর্ণা ও আনিসুর রহমান মিলন। প্রয়াত নায়ক মান্নার কৃতাঞ্জলি প্রযোজনার নতুন ছবি ‘জ্যাম’। ছবিটিতে অভিনয় করছেন ফৌরদৌস, ঋতুপর্ণা, আরিফিন শুভ ও পূর্ণিমা। এ ছবিটিও নির্মাণ করছেন নাঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল। পুলিশ এ্যাকশন থ্রিলার গল্পের সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’। ছবিটি নির্মাণ করেছেন ফয়সাল আহমেদ ও সানী সানোয়ার। ছবিটিতে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ, সাদিয়া নাবিলা, ঐশী, সৌমিথ সেন গুপ্ত ও তাসকিন রহমান। রোজার ঈদে ছবিটি মুক্তি পাবার কথা ছিল। পুলিশ এ্যাকশন গল্পে এম রহমান ও নির্মাণ করছেন ‘শান’ চলচ্চিত্র। ছবিটিতে অভিনয় করছেন পূজা চেরি, সিয়াম আহমেদ, অরুণা বিশ্বাস, মিশা সওদাগর ও চম্পা।

শাহীন সুমন পরিচালিত শাকিব-বুবলী অভিনীত ‘বিদ্রোহী’। ছবিটি রোজার ঈদে মুক্তি পাবার কথা ছিল। কিন্তু অচেনা করোনা ভাইরাসের কারণে পাল্টে যায় হিসেব-নিকেষ। কবে নাগাত মুক্তি পাবে তা নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চিতা। নাদের চৌধুরী পরিচালিত পূজা চেরি, সজল, রোশান ও মুন অভিনীত ‘জ্বীন’। এ ছবিটিও মুক্তির জন্য প্রস্তুত রয়েছে। অপেক্ষা সিনেমা হল খোলার। দীপংকর দীপন কোরবানির ঈদের জন্য নির্মাণ করেছেন ‘অপারেশন সুন্দরবন’। ছবিটিতে অভিনয় করেছেন রিয়াজ, নুসরাত ফারিয়া, সিয়াম, রোশান। বদিউল আলম খোকন পরিচালিত নির্মাণাধীন শাকিব খান-নবাগতা জাহারা মিতু অভিনীত সিনেমা ‘আগুন’। অনন্ত জলিল অভিনীত ও প্রযোজিত ব্যয়বহুল ছবি ‘দিন দ্যা ডে’। বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত এই সিনেমাটি পরিচালনা করছেন ইরানি নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম। এই ছবিতে অনন্তর বিপরীতে অভিনয় করেছেন তার স্ত্রী বর্ষা। এছাড়াও জায়েদ খানের ‘বাহাদুরী’, সাইমন-পরীমনির ‘নদীর বুকে চাঁদ’, গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘পাপ-পূণ্য’। এতে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, চিত্রনায়ক সিয়াম ও আফাসানা মিমির মতো তারকারা।

এফ আই মানিক পরিচালিত ডিপজল-মৌসুমী অভিনীত ‘সৌভাগ্য’। ডিপজলের ‘এ দেশ তোমার আমার’ সিনেমা হল খোলার প্রথম সপ্তাহে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। কয়েকটি ছবির শূটিং ছাড়া বাকি ছবিগুলো মুক্তির জন্য প্রস্তুত। এছাড়াও এক ডজনেরও বেশি ছবি মুক্তির অপেক্ষায় আছে। তবে কবে নাগাত পৃথিবী সুস্থ হবে এবং আলোর মুখ দেখবে ছবিগুলো সেটিই দেখার অপেক্ষা।

দীর্ঘদিন যাবত বন্ধ রয়েছে সিনেমা হল। বন্ধ হওয়া হলগুলো নতুন করে না খোলারই আশংঙ্কা। এমন বাস্তবতায় ঢাকাই চলচ্চিত্রর ভবিষ্যত নিয়ে শঙ্কিত সিনেমা সংশ্লিষ্টরা। এ ব্যাপারে পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘অনিশ্চিত এক ভবিষ্যতে আমাদের চলচ্চিত্র। এ অনিশ্চিত ভবিষ্যত কি ভাবে কাটিয়ে উঠবো আমরা নিজেরাও জানি না। সব কিছু একটা অভ্যাসের ব্যাপার। আমি যখন কলেজে পড়তাম তখন প্রতি শুক্রবার মর্নিং শোতে সিনেমা দেখতাম। সেই অভ্যাসের পরিবর্তন হয়েছে। তেমনি বেশ কিছু দিন সিনেমা হল বন্ধ থাকায় দর্শকেরও অভ্যাসের পরিবর্তন এসেছে। এই মুহূর্তে হল খুলে দিলে হুট করেই কেউ সিনেমা হলে যাবে না। এ অভ্যাসে ফিরিয়ে আনা কষ্টকর হবে। আমরা সরকারের কাছে ৫০টি সিনেমা নির্মাণের আবেদন জানিয়েছি। ৫০ কোটি টাকা দিয়ে সিনেমা বানানো তার কাছে কোন ঘটনা না। এক সাথে ৫০টি ছবি নির্মাণের উদ্যোগ নিলে চলচ্চিত্র কিছুটা হলেও ঘুরে দাঁড়াবে। ৫০টি ছবি বানাতে বিএফডিসি সব রকম সহযোগিতা করবে। সরকার অনেক কিছু করতেছে। সে চাইলে এটাও বাস্তবায়ন সম্ভব। ৫০ কোটি টাকা তার কাছে ব্যাপার না। আশা রাখছি তিনি সিনেমার দুর্দিন চিন্তা করে সিনেমার কল্যাণে আবেদনটি বাস্তবায়ন করবেন। চলচ্চিত্রর ১৭টি সংগঠন মিলে আমরা এ আবেদন করেছি।’

নির্মাণধীন ‘আগুন’ ছবির পরিচালক খোকন আরো বলেন, ‘দীর্ঘ দিন সিনেমা হল বন্ধ। এখন সিনেমা তৈরি হচ্ছে না। কিছু সিনেমা সেন্সর হয়ে মুক্তির জন্য প্রস্তুত। তবে এই মুহূর্তে কেউ সিনেমা হলে যাবে না। সামাজিক দূরত্ব মানতে হবে। সেটি সিনেমা হলে সম্ভব নয়। হলে সেই ব্যবস্থাও নেই। সিটের সাথে সিট লাগানো। আগে জীবন তারপর বিনোদন। বিনোদন চার নম্বর অপশন। এখন বেঁচে থাকার লড়াই। করোনা সবাইকে নাকাল অবস্থা করে দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে হল খুলে দিলেও কেউ হলে যাবে না। এমন অবস্থায় ঈদে কেউ নতুন ছবিও মুক্তি দিতে চাচ্ছে না।’

এক যুগ আগেও সিনেমা হলের সংখ্যা ১৪০০ থাকলেও তা বর্তমানে এসে ঠেকেছে দুই অংকের ঘরে। করোনার কারণে হল সংখ্যা আরো কমার আশঙ্কা করছেন অনেকেই। দীর্ঘ দিন সিনেমা হল ও সিনেপ্লেক্স বন্ধ থাকায় এ শিল্পে যে ক্ষতি হয়েছে ভবিষ্যতে তা পুষিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে কি-না তা সময় বলে দিবে।

Previous articleঈদের বিশেষ ধারাবাহিক নাটক ‘ডলার’
Next articleগানে গানে ঈদ আনন্দ

Leave a Reply